Pages

পূর্ণিমার রাতের প্রেম - কৃষণ চন্দর | অনুবাদঃ জাফর আলম

amarboi
পূর্ণিমার রাতের প্রেম
কৃষণ চন্দর
অনুবাদঃ জাফর আলম

১৯৪২ সালের বাংলার দুর্ভিক্ষের সময় মানবতা কিভাবে লাঞ্চিত হয়েছে, তারই করুণ চিত্র এঁকেছিলেন কৃষণ চন্দর ‘অন্নদাতা’ উপন্যাসে। ‘অন্যদাতা' উপন্যাসের দ্বিতীয় ও তৃতীয় অধ্যায়ে ছিল কৃষণ চন্দরের বিখ্যাত গল্প ‘মুবি’; সামনে ‘প্রদীপ’ ও ‘ভগতরাম'। ভিন্ন স্বাদের গল্প তিনটি পাঠকের অনুভূতিকে নাড়া দেবে। 'পূর্ণিমার রাতের প্রেম' গ্রন্থে তিনটি গল্প অন্তর্ভুক্ত করেছি। গল্প তিনটি প্রকাশিত হয়েছিল বন্ধুবর রেজাউল করিম সম্পাদিত মাসিক সঞ্চয় ও ‘চিত্রালী’তে আশির দশকে। ‘জামগাছ' গল্পে কৃষণ চন্দর আমলাতন্ত্রের লালফিতার কারণে কি সমস্যার সৃষ্টি হয়, তা সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন। সরকারী প্রকল্পের নামে যে দুর্নীতি ও অর্থের অপচয় ঘটে তারই চিত্র এঁকেছেন ‘কুকুরের পরিবার পরিকল্পনা’ গল্পে। ‘পেশােয়ার একপ্রেস' গল্পে অপূর্ব দক্ষতার সাথে তিনি ভারত বিভাগের করুণ চিত্র এঁকেছেন, যেখানে শত শত নিরীহ মানুষ প্রাণ দিয়েছে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায়। ‘বােবার প্রেম’ এবং ‘পূর্ণিমার রাতের প্রেম’ দুটি গল্পই কৃষণ চন্দরের রােমান্টিক মনের পরিচয় বহন করে। ‘বিচারক’ গল্পে তিনি দেখিয়েছেন, অনেক সময় বিচারকরাও সুন্দরী প্রতিযােগিতায় নিজের মেয়েকে পুরস্কারের তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য অবিবেচকের ন্যায় কাজ করে থাকেন। ‘আলাে চাই' গল্পে লেখক চাকুরিজীবী মেয়েরা এখনও রাতে পথে-ঘাটে চলাফেরায় নিরাপদ নয়- একথাই প্রমাণের চেষ্টা করেছেন। এধরণের ঘটনা এদেশেও বিরল নয়। ‘মিস নৈনিতাল’ গল্পে কৃষণ চন্দর অত্যন্ত মুন্সিআনার সাথে তুলে ধরেছেন, বড়লােকের মেয়ের আহত কুকুরের কাছে হাসপাতালে বাঘের আক্রমনে ক্ষত বিক্ষত গরীব যুবকের জীবন মূল্যহীন। ‘মন্ত্রীর অসুখ’ গল্পে লেখক রাজনীতিবিদদের সারহীন ও বড়ম্বরপূর্ণ বক্তৃতার ব্যঙ্গ চিত্র এঁকেছেন, যা রাজনীতিবিদদের বেলায় প্রযােজ্য।

বই নিয়ে শুধুমাত্র বই নিয়েই আমাদের এই প্রয়াস। ধ্বংস ও ধসের সামনে বই সবচেয়ে বড় প্রতিরোধ। বই আমাদের মৌলিক চিন্তাভাবনার শাণিত অস্ত্র। বইয়ের অস্তিত্ব নিয়ে চারিদিকে আশঙ্কা, বই নিয়ে শুধু মাত্র বই নিয়েই আমাদের এই প্রয়াস। ধ্বংস ও ধসের সামনে বই সবচেয়ে বড় প্রতিরোধ। বই আমাদের মৌলিক চিন্তাভাবনার শাণিত অস্ত্র। বইয়ের অস্তিত্ব নিয়ে চারিদিকে আশঙ্কা, নতুন প্রজন্ম চকঝমকের আকর্ষণে বইয়ের দিক থেকে ঘুরিয়ে নিচ্ছে মুখ। আমাদের এ আয়োজন বইয়ের সাথে মানুষের সম্পর্ককে অনিঃশেষ ও অবিচ্ছিন্ন করে রাখা। আশাকরি আপনাদের সহযোগিতায় আমাদের এই ইচ্ছা আরোও দৃঢ় হবে। দুনিয়ার পাঠক এক হও! বাংলা বই বিশ্বের বিবিধ স্থানে, সকল বাংলাভাষীর কাছে সহজলভ্য হোক!