সাম্প্রতিক বইসমূহ
Showing posts with label বই আলোচনা. Show all posts
Showing posts with label বই আলোচনা. Show all posts

বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা ও প্রাসঙ্গিক বিতর্ক - মোহাম্মদ আবদুল জব্বার


কাউকে বড় করার জন্য আমরা অন্যকে ছোট করতে ভালবাসি অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধা, সহিঞ্চুতার কোনো বালাই আমাদের নেই। ‘সমালোচনার মর্যাদা’ বস্তুটির নামগন্ধ সমাজের কোথাও খুঁজে পাওয়া যাবে না। আমাদের স্বাধীনতার ঘোষণা নিয়ে বির্তক শুরু নব্বই দশকের গোড়ার দিকে। সূত্রপাত হয়েছিল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে। এক মুক্তিযোদ্ধাকে ‘বড়’ করতে জাতিরজনককে খাটো করতে। এই প্রচেষ্টার বিরোধীরা তখন পত্র-পত্রিকায় লেখালিখি, বিবৃতি দিয়ে এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন। পরবর্তীতে আইন-আদালতের মাধ্যমে বিষয়টির নিষ্পত্তি করতে চেয়েছেন। তারপরে মুক্তিযুদ্ধে নানাভাবে অংশগ্রহণকারী কয়েকজন তাঁদের লেখায় এ বিষয়ে অভিমত প্রকাশ করে সেই বির্তককে উস্কে দিয়েছেন। 

এবারের বইমেলায় প্রকাশিত “বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা ও প্রাসঙ্গিক বিতর্ক” গ্রন্থে লেখক মোঃ আবদুল জব্বার আবার ঐ সব বক্তব্য খণ্ডনের প্রয়াস পেয়েছেন। বইগুলো হলো মঈদুল হাসানের মূলধারা '৭১, এ কে খন্দকারের ১৯৭১ ভেতর বাইরে, হুমায়ূন আহমেদের জোছনা ও জননীর গল্প, গোলাম মুরশিদের মুক্তিযুদ্ধ ও তারপর, শারমিন আহমদের তাজউদ্দিন আহমদ - নেতা ও পিতা।
এখানে লেখক এর আগে প্রকাশিত সাড়া জাগানো পাঁচটি বইয়ের বক্তব্যকে ভ্রান্ত প্রমাণের চেষ্টা করেছেন। এ ব্যাপারে লেখক মোঃ আবদুল জব্বার আমাদের ঐতিহ্য মতো কাউকে ‘ছোট’ না করে, তীব্র আক্রমণ না করে, যুক্তি ও তথ্যের মাধ্যমে তাঁর মত প্রতিষ্ঠার প্রয়াস পেয়েছেন। যা পাঠকের মনোযোগ দাবি ক... 




এভাবেও ভিন্নমত প্রকাশ করা যায় তা আমাদের রাজনীতির ‘খিস্তি-খেউড়ে’ মধ্যে কিঞ্চিৎ স্বস্তিদায়ক। গ্রন্থলেখক আদালতের রায়ের মাধ্যমে স্বাধীনতা ঘোষণা বির্তকের অবসানের কথা অনেকবার উল্লেখ করেছেন। যা তাঁর বক্তব্য প্রতিষ্ঠার বারংবার অবতারিত হয়েছে এ বইয়ে। কিন্তু আইন বা আদালতের সিদ্ধান্তের মাধ্যমে কি ইতিহাসের সত্য প্রতিষ্ঠা করা যায়? এই প্রশ্নটি থেকেই যায়। প্রচ্ছদ করেছেন অশোক কর্মকার, আরো একটু দৃষ্টিনন্দন হতে পারতো। তবু বলছি এবার বইমেলায় অনেক বইয়ের মাঝে এটি একটি মূল্যবান ও বুদ্ধিদীপ্ত বই।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা ও প্রাসঙ্গিক বিতর্ক
মোহাম্মদ আবদুল জব্বার
সাহিত্য প্রকাশ
প্রচ্ছদঃ অশোক কর্মকার
৩৫০ টাকা
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

চোদ্দ শতকের বাঙালী - ড. অতুল সুর

amarboi চোদ্দ শতকের বাঙালী - ড. অতুল সুর

ড. অতুল সুর ১৯২১ খ্রীস্টাব্দের ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষায় ইতিহাসে ১০০-র মধ্যে ৯৯ নম্বর পেয়ে এক সর্বকালীন রেকর্ড সৃষ্টি করেছিলেন। ১৯২৮ খ্রীস্টাব্দে প্রাচীন ভারতীয় ইতিহাস, সংস্কৃতি ও নৃতত্ত্ব বিষয়ে এম.এ পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণীতে প্রথম স্থান অধিকার করে সুবর্ণ পদক ও পুরস্কার পেয়েছিলেন। Cum Laude সম্মানসহ অর্থনীতিতে ডি.এস.সি উপাধি পেয়েছেন। ক্রিটিকস্ সারকেল অফ্ ইন্ডিয়া থেকে CCI Award পেয়েছেন। নিখিল ভারত বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলন থেকে ‘সুশীলাদেবী বিড়লা স্মৃতি পুরস্কার পেয়েছন। পশ্চিমবঙ্গ সরকার কর্তৃক ‘রবীন্দ্র পুরস্কার’ দ্বারা সম্মানিত হয়েছেন। বহুদিন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ও অন্যত্র অধ্যাপনা করেছেন। ৩৪ বছর কলকাতা স্টক এক্সচেঞ্জের অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ছিলেন। ৪১ বৎসর ‘আনন্দবাজার পত্রিকা’ সংস্থার বিভাগীয় সম্পাদকের কাজ করেছেন। ড. নীহারঞ্জন রায় এর মূল্যায়ন “আমাদের সমপর্যায়ের লোক হয়েও আপনার পান্ডিত্যের অভিমান নেই, নীরবে বাঙলাদেশ ও বাঙালীর ইতিহাস আপনি উদ্ঘাটিত করে চলেছেন। আপনি আমার মত অনেকেরই শ্রদ্ধাভাজন হয়েছেন, আপনার কর্মের দ্বারা।”
ড. অতুল সুর- এর কয়েকটি বই ভাগাভাগির ইচ্ছা আছে। প্রতি রবিবারে তাঁর একটি করে বই থাকবে।
আজ থাকছে...
তাঁর দৃষ্টিতে গত বঙ্গাব্দ অর্থাৎ ১৪০০ বঙ্গাব্দের বাঙালির মূল্যায়ন করে একটি প্রবন্ধ-সংকলন "চোদ্দ শতকের বাঙালী"।
“ছেলেদের লেখাপড়ার খরচও ছিল খুব কম। স্কুলের মাইনে ছিল মাসিক এক আনা থেকে শুরু করে ম্যাট্রিকুলেশন (স্কুল ফাইনাল) ক্লাসে দু’টাকা। কলেজের মাইনে এক টাকা (ক্ষুদিরাম বাবুর সেনট্রাল কলেজে) থেকে শুরু করে পাঁচ টাকা (স্কটিশ চার্চ কলেজে)। বিশ্ববিদ্যালয়ের এম.এ ক্লাসের মাইনে ছিল আট টাকা। পরীক্ষার ফি ছিল পনের থেকে পঁচিশ টাকা। আমার প্রথম বছরে লেখাপড়া করতে মোট খরচ হয়েছিল চোদ্দ আনা পয়সা-
মাসিক এক আনা হিসাবে এক বৎসরে মাইনে বারো আনা,
একখানা বর্ণপরিচয় দু’পয়সা,
একখানা ধারাপাত দু’পয়সা,
একখানা শ্লেট তিন পয়সা,
ও শ্লেট-পেনসিল এক পয়সা।
আজকালকার মত বছরে বছরে পাঠ্যপুস্তক পরিবর্তিত হত না। একবার পাটিগণিত, বীজগণিত ও জ্যামিতির বই কিনলে দু-চার পুরুষ তা পড়ত।“

Scanned & Shared By: Yeadira BD

Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

সভ্যতার জন্ম - উইল ডুরান্ট অনুবাদ - কিউ.এন. জামান

amarboi সভ্যতার জন্ম - উইল ডুরান্ট অনুবাদ - কিউ.এন. জামান
Scanned & Shared By: Yeadira BD

Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

নিজের কাছেই নিজে অপরিচিত সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় (বই আলোচনা)

Amarboi.com
পাঠক বইটি পড়বে এটাই আমাদের মৌলিক উদ্দেশ্য। আমরা চাই পাঠক বইটি পড়ুক, আলোচনা, সমালোচনা করুক, তাহলেই আমাদের সার্থকতা। নইলে এতো কষ্ট বৃথা, তাই আপনাদের মন্তব্যের অপেক্ষায় রইলাম। আর্থিক ভাবে আমাদের সহায়তা করবার জন্য, অনুরোধ রইলো আমারবই.কম এর প্রিমিয়াম সদস্য হবার। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

হুমায়ূন আজাদের নারী কেন নিষিদ্ধ হয়েছিল?


প্রকাশের চার বছর পূর্ণ হওয়ার বেশ আগেই, ১৯৯৫ খ্রিস্টাব্দের ১৯ নভেম্বর নারী (১৯৯২) নিষিদ্ধ করে তখনকার গণতান্ত্রিক(!) সরকার। ধর্ম ব্যবসায়ী, প্রতিক্রিয়াশীল, কুসংস্কারাচ্ছন্নদের জন্য বিপজ্জনক হুমায়ুন আজাদের (১৯৪৭-২০০৪) আরও কয়েকটি বই নিষিদ্ধ হতে পারত। যেমন_হুমায়ুন আজাদের প্রবচনগুচ্ছ (১৯৯২), প্রতিক্রিয়াশীলতার দীর্ঘ ছায়ার নীচে (১৯৯২), শুভব্রত, তার সম্পর্কিত সুসমাচার (১৯৯৭), আমার অবিশ্বাস (১৯৯৭), রাজনীতিবিদগণ (১৯৯৮), ধর্মানুভূতির উপকথা ও অন্যান্য (২০০৪), পাক সার জমিন সাদ বাদ (২০০৪) ইত্যাদি। ডানপন্থী বিএনপি-জামায়াত সরকার শেষ বইটি নিষিদ্ধ করতে পারত আনন্দের সঙ্গে, তারা তা করেনি। না করার কারণ, তারা সম্ভবত বুঝে গিয়েছিল : এক. বই নিষিদ্ধ করা মানে নিজেদের দুর্বলতা প্রকাশ করে ফেলা; দুই. নিষিদ্ধ বই খুব সহজেই দৃষ্টি আকর্ষণ করে, সমাজের সহানুভূতি লেখকের পক্ষে চলে যায়; তিন. এটা খুব ক্ষণস্থায়ী, শেষ পর্যন্ত কোনো বই-ই নিষিদ্ধ রাখা যায় না। যেমন যায়নি বেশি দিন নারী নিষিদ্ধ রাখা; ২০০০ খ্রিস্টাব্দের ৭ মার্চ বাংলাদেশের উচ্চ বিচারালয় ওই আদেশ অবৈধ ঘোষণা করলে পরের মাসেই বইটির তৃতীয় সংস্করণ দ্বিতীয় মুদ্রণ বেরোয়। নারী নিষিদ্ধ রাখা বেশি দিন সম্ভব হয়নি সেই সরকারের পক্ষে, অন্য বইগুলোর ক্ষেত্রেও এমনটি ঘটত। তাহলে বিপজ্জনক হুমায়ুন আজাদকে নিষিদ্ধ করাই ছিল তাদের জন্যে জরুরি; কিন্তু রাষ্ট্রের অত শক্তি ছিল না; কখনও থাকে না; রাষ্ট্র একনায়কচালিত ফ্যাসিস্ট আর উগ্র মৌলবাদী হলে অবশ্য ভিন্ন কথা। তবে সেই সরকারের মধ্যে ছিল ফ্যাসিস্ট মনোভাব আর উগ্র মৌলবাদী ধর্ম ব্যবসায়ীদের খুব শক্তিমান একটা অংশ, যারা হুমায়ুন আজাদকে থামিয়ে দিতে ভীষণ অস্থির হয়ে পড়েছিল।
নারী কেন নিষিদ্ধ হয়েছিল? বই নিষিদ্ধ হওয়ার থাকে অনেক কারণ। যে কারণ দেখিয়ে নিষিদ্ধ করা হয়, সেটি লক্ষ করলেই বোঝা যায় তখনকার ক্ষমতাধরদের মনোভাব, রাষ্ট্র কতটা দুর্বল, অসহায় আর পশ্চাৎপদ। অনেক বই আছে যেগুলো নিষিদ্ধ হওয়ার কারণ বেশ হাস্যকর। যেমন_জর্জ অরওয়েলের (১৯০৩-১৯৫০) নাইনটিন এইটি ফোর (১৯৪৯) সোভিয়েত সরকার নিষিদ্ধ করে ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দে; স্ট্যালিনের মনে হয়েছিল বইটিতে তাঁর নেতৃত্ব নিয়ে ব্যঙ্গ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে আর যুক্তরাজ্যেও এটি নিষিদ্ধ ছিল ষাটের দশকের শুরুতে এবং কিছু কাটছাঁটের পর পতনোন্মুখ সোভিয়েত ইউনিয়নে বইটি প্রকাশের অনুমতি পায় ১৯৯০ খ্রিস্টাব্দে। স্ট্যানলি ওলপার্টের জিন্নাহ অব পাকিস্তান (১৯৮৪) বইটি পাকিস্তানে নিষিদ্ধ হয়েছিল জিন্নাহ শুয়োরের মাংস খেয়েছেন আর মদ্যপান করেছেন এই তথ্য তাতে ছিল বলে; অরুন্ধতি রায়ের গড অব স্মল থিংস (১৯৯৬) খ্রিস্টান মহিলার সঙ্গে নিম্নবর্ণের হিন্দুর যৌনকর্মের দৃশ্য বর্ণনার অভিযোগে ভারত সরকার নিষিদ্ধ করে। এমন বইও রয়েছে, নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পর সেটি পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে! আলেক্সান্দর সোলঝেনিৎসিনের (১৯১৮-২০০৮) দ্য গুলাগ আর্কিপিল্যাগো (১৯৭৩-৭৮) সোভিয়েত সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার অভিযোগে নিষিদ্ধ হয়; ২০০৯ সালে রাশিয়া সরকার এই নিষেধাজ্ঞা কেবল প্রত্যাহারই করেনি, রাশিয়ার শিক্ষা মন্ত্রণালয় হাইস্কুল কারিকুলামে বইটি অন্তর্ভুক্তও করে। নাদিন গর্ডিমারের উপন্যাস জুলাই'স পিপল (১৯৮১) দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার নিষিদ্ধ করলেও এখন তা সেদেশের স্কুলের পাঠ্যসূচিতে জায়গা করে নিয়েছে।
কেন নারী নিষিদ্ধ হয়েছিল? বেদনাদায়ক ও হাস্যকর বইটি নিষিদ্ধ করার আদেশপত্রে যে সহকারী সচিব স্বাক্ষর করেছিলেন, তিনি একজন নারী। ওই আদেশপত্রে বলা হয়, "পুস্তকটিতে মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতি তথা মৌলিক বিশ্বাসের পরিপন্থী আপত্তিকর বক্তব্য প্রকাশিত হওয়ায় সরকার কর্তৃক ফৌজদারি কার্যবিধির ৯৯ 'ক' ধারার ক্ষমতাবলে বর্ণিত পুস্তকটি বাজেয়াপ্ত হইল।" এর সঙ্গে জুড়ে দেয়া হয় দুই পাতার একটি সুপারিশ। দ্বীনি দাওয়াত ও সংস্কৃতি বিভাগ এবং ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমির পরিচালক_ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এ দুটি বিশেষজ্ঞ থেকেই আসে সুপারিশটি। এরা নারী থেকে ১৪টি বাক্য উদ্ধৃত করে বইটি বাজেয়াপ্ত করার পরামর্শ দেয়। হুমায়ুন আজাদ লিখেছেন, 'এত বড় বই পড়ার শক্তি ওই দুই মৌলবাদীর ছিল না; তারা বইটি থেকে কয়েকটি বাক্য তুলে পরামর্শ দেয় নিষিদ্ধ করার।'
বাক্যগুলোর মধ্যে ছিল_'নারীর প্রধান শত্রু মৌলবাদ'; '১৯৯১-এর উপসাগরীয় যুদ্ধের পূর্বমুহূর্তে সৌদি আরবের মতো আদিম পিতৃতন্ত্রও নারীদের ঘর থেকে বের করে লাগিয়েছে নানা কাজে' ইত্যাদি বাক্য। কিন্তু এ ধরনের বাক্য পত্র-পত্রিকায় প্রায়ই ছাপা হয়ে থাকে এবং উদ্ধৃত বাক্যগুলো একটা বই নিষিদ্ধ করার অজুহাত হিসেবে খুবই দুর্বল। নারীতে এগুলোর চেয়ে তীক্ষ্ন ও আক্রমণাত্দক বাক্য যথেষ্ট রয়েছে; কিন্তু পরামর্শকরা পুরো বই পড়েনি বলে সেসব বের করতে পারেনি। হুমায়ুন আজাদ যথার্থই বলেছিলেন, 'এত বড় বই পড়ার শক্তি' ওদের ছিল না। ওই নিষেধাজ্ঞার ভিত্তি যে কত হাস্যকর ও নিরীহ, সেই বাক্যগুলো পড়লে বোঝা যায়; কিন্তু ওই নারী সহকারী সচিব তা বুঝতে পারেননি। এ-ও মর্মান্তিক যে, রাষ্ট্রের সর্বব্যাপী ক্ষমতা তখন যাঁর হাতে, তিনিও একজন নারী! 'নিষিদ্ধ নারী মুক্ত নারী' শীর্ষক রচনায় হুমায়ুন আজাদ জানিয়েছেন, আদালতে 'বামন কুৎসিত মৌলবাদী একটি লোক' তাঁর সঙ্গে দেখা করে এবং জানায় যে, তার আবেদনেই নিষিদ্ধ হয়েছে নারী। কথাটি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ ও প্রতীকী : বামন লোকটি কেবল সভ্যতা ও সংস্কৃতির অগ্রগমনের পথরোধকারী নয়, সে প্রতিনিধিত্ব করছে পুরুষতান্ত্রিক রাষ্ট্রের বামনত্বের; আরও বলা চলে, একটি গ্রন্থের চেয়ে নির্বোধ বামনের মূল্য সরকারের কাছে বেশি; ফলে সরকার তার আবেদনে বিহ্বল হয়ে পড়েছিল।
ধর্মীয় অনুভূতির চেয়ে নারীতে বেশি আক্রান্ত হয়েছে পুরুষতন্ত্র। ধর্ম পুরুষতন্ত্রের খুব অনুগত সন্তান; তাকে দিয়ে বলানো হয়েছে নারী এক অবাধ্য বাঁকা হাড়, যে স্বর্গে সৃষ্টি করে বিশৃঙ্খলা। পুরুষতন্ত্র নারীর সংজ্ঞা তৈরি করেছে, নির্ধারণ করেছে তার অবস্থান, তার ওপর ছড়ি ঘোরানোর জন্য তৈরি করেছে নিষ্ঠুর সব বিধি, তাকে কামসঙ্গী ও পরিচারিকা বানিয়ে তুলেছে। ধর্ম এতে খুব কাজে লেগেছে পুরুষদের। ফলে পুরুষতন্ত্র আক্রান্ত হলে বিপদটা ধর্মের ওপরও এসে পড়ে। নারীতে ঘটেছে এমনটিই। রাষ্ট্র পুরুষতান্ত্রিক হলে সেখানে এ বই নিষিদ্ধ হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়।
বিএনপি-জামায়াত সরকার তাদের পতনের আগে তাড়াহুড়ো করে বইটি নিষিদ্ধ করে। ভাবা গিয়েছিল, নতুন সরকারের সময়ে বইটির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার ত্বরান্বিত হবে; আদৌ তা হয়নি এবং বেশ দেরিতে, আরেকটি মাৎস্যন্যায় আসার কিছু আগে_২০০০ খ্রিস্টাব্দের ৭ মার্চ দুজন বিচারপতি রায় দেন, নারী নিষিদ্ধকরণ আদেশ অবৈধ। অধিকারহীনতার এই দেশের প্রেক্ষাপটে রায়টি ছিল যুগান্তকারী ও ঐতিহাসিক; কিন্তু প্রচার মাধ্যমগুলোর কাছে এর কোনো গুরুত্ব ছিল না। আমাদের প্রচার মাধ্যমগুলো জনপ্রিয়তার ভীষণ কাঙাল, কিন্তু সাংস্কৃতিক দায়িত্বের সঙ্গে যে এর একটা গভীর নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে, তা বোঝার ইচ্ছা বা সামর্থ্য এগুলোর নেই।
ধর্মানুভূতিতে আঘাতের কারণ দেখিয়ে নিষিদ্ধ হওয়া বইয়ের অভাব পৃথিবীতে নেই। ড্যান ব্রাওনের দি দ্য ভিঞ্চি কোড (২০০৩) নিষিদ্ধ হয় লেবাননে, ক্রিশ্চিয়ানিটির ওপর আঘাতের অজুহাতে; সালমান রুশদির স্যাটানিক ভার্সেস (১৯৮৮) নিষিদ্ধ হয় বাংলাদেশ, মিসর, ভারত, ইরান, কেনিয়া, কুয়েত, লাইবেরিয়া, পাপুয়া নিউগিনি, পাকিস্তান, সেনেগাল, সিংগাপুর, শ্রীলংকা, তানজানিয়া ও থাইল্যান্ডে; জর্জ অরওয়েলের পলিটিক্যাল নভেলা অ্যনিমেল ফার্ম (১৯৪৫) কেনিয়ায় নিষিদ্ধ হয় ১৯৯১ সালে, কারণ এতে ছিল দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের সমালোচনা। ২০০২ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্কুলে নিষিদ্ধ হয় বইটি। উপন্যাসটি রাজনৈতিক হলেও নিষেধাজ্ঞায় বলা হয়, এতে এমন কিছু রয়েছে, যা ইসলাম এবং আরব মূল্যবোধের বিরুদ্ধে যায়। এ রকম বহু দৃষ্টান্ত রয়েছে।
নিষিদ্ধ বই মানেই বিখ্যাত এবং এর লেখক শেষ পর্যন্ত খুবই ভাগ্যবান। যুগে যুগে এসব বই সমাজকে এগিয়ে দিয়েছে; যদিও সমাজ তা বুঝতে পারেনি বা অনেক পরে টের পেয়েছে। নিষিদ্ধ বইয়ের তালিকা বেশ দীর্ঘ। এগুলোর মধ্যে অল্প কয়েকটির কথা উল্লেখ করা হলো; নিষিদ্ধ হওয়ার কারণও বলা হলো খুব সংক্ষেপে : এরিখ মারিয়া রেমার্কের (১৮৯৮-১৯৭০) উপন্যাস অল কোয়ায়েট অন দ্য ওয়েস্টার্ন ফ্রন্ট (১৯২৯) নিষিদ্ধ করেছিল সে সময়ের জার্মান সরকার, নাজিদের 'ডিমোর‌্যালাইজড' করার অজুহাতে; জেমস জয়েসের (১৮৮২-১৯৪১) ইউলিসিস (১৯২২) সেক্স কন্টেন্টের জন্যে ১৯৩৩ খ্রিস্টাব্দে ব্রিটেনে; বর্ণবাদের বিরুদ্ধাচরণের কারণে নাদিন গর্ডিমারের বার্গারস ডটার (১৯৭৯) প্রকাশের বছরেই নিষিদ্ধ করে দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার; অবসিনিটির অজুহাতে জন ক্লেল্যান্ডের (১৭০৯-১৭৮৯) ফ্যানি হিল (১৭৪৯) আমেরিকায় নিষিদ্ধ হয় দু'বার_১৮২১ ও ১৮৬৩ খ্রিস্টাব্দে; ভ্লাদিমির নবোকভের (১৮৯৯-১৯৭৭) লোলিটা (১৯৫৫) নিষিদ্ধ হয়েছিল অবসিনিটির কারণ দেখিয়ে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, আর্জেন্টিনা, নিউজিল্যান্ড আর সাউথ আফ্রিকায়; গুস্তাভ ফ্লবেয়ারের (১৮২১-১৮৮০) মাদাম বোভারি (১৮৫৭) জনসাধারণের নৈতিক স্খলনে উৎসাহের অজুহাতে; ফ্রানৎস কাফকার (১৮৮৩-১৯২৪) মেটামরফোসিস (১৯১৫) নাজি ও কমিউনিস্ট কর্তৃক নিষিদ্ধ হয়। যে বইগুলোর উল্লেখ করা হলো, প্রায় সবকটিই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ গ্রন্থ।
মজার ব্যাপার, কোনো বই পৃথিবীর সব দেশে নিষিদ্ধ হয় না; একটি রাষ্ট্রের সর্বত্রও হয় না। তসলিমা নাসরিনের লজ্জা (১৯৯৩) ভারতের কোনো কোনো প্রদেশে নিষিদ্ধ হয়। হাস্যকর, যারা নিষিদ্ধ করে, তারা বুঝতে পারে না বইটি কোথাও না কোথাও কেউ না কেউ পড়ছে বা পড়বে। তাদের বোঝার ক্ষমতা নেই যে একদিন ঠিকই বইটি পরিণত হবে অবশ্য বা জরুরি পাঠ্যে; একদিন তারা সমাজের জন্য ঘৃণা, করুণা আর লজ্জার বিষয় হয়ে উঠবে। তারা সেই কুৎসিত বামনের বংশধর, যারা বারবার জ্ঞান ও শিল্পকলার পথরোধ করে দাঁড়ায়। তবে এই বাধা খুব ক্ষণস্থায়ী।
লেখকঃ চঞ্চল আশরাফ
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

ল্যান্ড অফ টু রিভারসঃ আ হিস্ট্রি অফ বেঙ্গল ফ্রম দ্য মহাভারত টু মুজিব [বই আলোচনা]


This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

রঞ্জিত জননী - সার্জিল খান

amarboi.com
রঞ্জিত জননী - সার্জিল খান।

নতুন প্রজন্মের চোখে দেখা মুক্তিযুদ্ধ, এ আবেগের চোখে দেখা অন্যরকম কাহিনী। বইটি আগামী বইমেলায় (২০১৩) প্রকাশিতব্য। বইটি সম্পর্কে লেখক বলছেন, "মুক্তিযুদ্ধের গভীরতা স্বাধীনতা পরবর্তী প্রজন্মদের কাছে পুরোই কঠিন একটি বিষয়। কি রকম ভয়াবহতার মাঝে, আবেগের মাঝে, প্রতিশোধের মাঝে এদেশের সাত কোটি মানুষ নয়টি মাস পার করেছিলো, সে ধারণা আমরা স্বাধীনতা পরবর্তী প্রজন্মরা কল্পনাও করতে পারবো না। অনেকটা যে অন্ধ লোক জন্মের পর কখনোই হাতি দেখেনি সে হাতির গঠন কেমন তা বুঝবে কি করে? তবে এরপরেও দুঃসাহস দেখিয়ে উপন্যাসটি লিখেছি। কারণ এই গভীরতাটি ফুটিয়ে তোলা যুদ্ধ পরবর্তী প্রজন্মের সন্তানদের মাঝে আজকেও যেমন কঠিন, যখন বয়স বাড়বে তখনও ঠিক একই রকমের কঠিনই থাকবে। আর এই দুঃসাহস দেখিয়েছি শুধুই আবেগ থেকে। যদি কিছুটা আবেগকে ভাগাভাগি করা যায় প্রজন্মের আমার সমসাময়িক বয়সের মানুষদের সাথে। শুধুমাত্র এজন্যই এই দুঃসাহস। তবে এই উপন্যাসটি লিখতে গিয়ে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক কয়েকটি উল্লেখযোগ্য বই পড়তে হয়েছে। আহসান হাবীব স্যারের ৭১’র রোজনামচা বইয়ের একটি গল্প পড়ে সর্বশেষ উদ্যোগ নেই বইটি লেখার জন্য। এটি কেবলই যুদ্ধ ভিত্তিক একটি উপন্যাস। কোন ইতিহাসের দলিল নয়। যদিও এখানে ইতিহাসের অনেক দিক তুলে ধরা হয়েছে। তাই ভুল ত্রুটি থাকলেও ক্ষমা সুলভ দৃষ্টিতে দেখলে কৃতজ্ঞ থাকবো।" সম্পূর্ণ বইটি নয়, কিছু অধ্যায় প্রকাশিত হলো। সম্পর্কে যাবতীয় মন্তব্য করতে পারেন আমার ফেসবুক আইডিতে www.facebook.com/sarxilkhan
Chrome Extension for Amarboi, Add it Now You can follow us on Twitter or join our Facebook fanpage or even follow our Google+ Page to keep yourself updated on all the latest from Bangla Literature.
Download Bangla books in pdf form amarboi.com and also read it online. 'bangla-boi, boimela, humayun ahmed, bangla boi, ebook, bangla-ebook, bangla-pdf, bangla book, bangla pdf, zafar iqbal, boi, bengali books download, ronjito jononi sarjil khan'
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

মহাত্মা লালন ফকির - শ্রীবসন্ত কুমার পাল

amarboi.com


মহাত্মা লালন ফকির - শ্রীবসন্ত কুমার পাল

লালন সাঁই বাঙালি সমাজ-সংস্কৃতির পুরোধা ও রেনেসাঁ ব্যক্তিত্ব। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সমান সম্মানীয়। তাঁর গান প্রায় সবারই দৃষ্টি ও মনোযোগ কেড়েছে।
অবশ্য দীর্ঘদিন ধরে অগোচরে ছিল লালন ও তাঁর বাউলসংগীত। শুধু শিষ্য-প্রশিষ্য ও ভক্তদের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল এর প্রচার-প্রচারণা ও আবেদন। যদিও এখন লালন সর্বজনীন সম্পদ ও আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিগণিত হয়েছে। ছেউড়িয়ার এক বাউলের গানে টুটে গেছে গ্রাম-শহরের বিভেদরেখা।
লালনকে জানার প্রথম প্রামাণ্য কাজটি করেন বসন্তকুমার পাল। রচনা করেন প্রথম প্রামাণ্য লালন জীবনী। প্রসঙ্গত, তাঁর আগে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর লালনের গান সংগ্রহ ও প্রকাশ করেন।মীর মশাররফ হোসেন সম্পাদিত হিতকরী পত্রিকায় লালনের মৃত্যুর খবর প্রকাশিত হয়। প্রবাসী পত্রিকায় প্রকাশিত বসন্তকুমারের লালন-সম্পর্কিত প্রবন্ধ লালনচর্চায় নতুন মাত্রা যোগ করে। আজ থেকে দীর্ঘ ৫৭ বছর আগে প্রকাশিত তাঁর মহাত্মা লালন ফকির বইটি দীর্ঘকাল ধরেই দুষ্প্রাপ্য ছিল।
লালন গবেষক আবুল আহসান চৌধুরীর সম্পাদনায় বইটির প্রতিলিপি সংস্করণ এবারের বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে। সম্পাদক দীর্ঘ ভূমিকায় লালনচর্চার প্রেক্ষাপটে বসন্তকুমার পালের জীবন ও সাহিত্যকর্মের তথ্যনিষ্ঠ বিবরণ দিয়েছেন। সংযোজন করেছেন অপ্রকাশিত পত্রাবলি, অগ্রথিত রচনা, আলোকচিত্র, গ্রন্থ সমালোচনা ও শ্রাদ্ধপত্র।
বসন্তকুমার পালেরমহাত্মা লালন ফকির-এর সমালোচনা ১৯৫৫ খ্রিষ্টাব্দের ২৫ ডিসেম্বর যুগান্তর পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। যেখানে উল্লেখ করা হয়েছে: ‘...শত শত হিন্দু ও মুসলমানের গুরুপদে বৃত হইয়া সমাজ-নির্বিশেষে বহু লোকের অধ্যাত্ম-জীবনকে ফুটাইয়া তুলিতে সমর্থ হয় তাঁহারই বিচিত্র কাহিনী এই পুস্তকে সুন্দর ভাষায় বর্ণিত হইয়াছে। ... লালনের গান সব সময় পাওয়া যায় না। সুতরাং এই পুস্তকে সংগৃহীত রচনাগুলিও বাউল গানের সংগ্রহ হিসেবে আদরণীয় হইবে।’
উল্লেখ্য, বৃহত্তর নদীয়া জেলার কুষ্টিয়া মহকুমার কুমারখালী থানার ধর্মপাড়া গ্রামে বসন্তকুমার পাল (১৮৯০-১৯৭৫) জন্মগ্রহণ করেন। গড়াই নদীর দক্ষিণ তীরে অবস্থিত ধর্মপাড়াসংলগ্ন গ্রাম ভাঁড়ারা ফকির লালন সাঁইয়ের জন্মস্থান। সাধক লালন দেহত্যাগ করেন বাংলা ১২৯৭ সনের ১ কার্তিক, আর লালনচর্চার পথিকৃৎ বসন্তকুমার পালের জন্ম ওই একই সালে, একই মাসে। আজীবন তিনি একাগ্র নিষ্ঠায় লালনচর্চায় নিবেদিত ছিলেন। বইয়ে শুধু লালনের জীবনী নয়, বেশ কিছু গান সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করা হয়েছে। যেমন: ‘আছে আদি মাক্কা এই মানবদেহে। ‘দ্যাখনা রে মন! ভেয়ে/দেশ দেশান্তর দৌড়ে এবার মরিস কেন হাঁপিয়ে।/ক’রে অতি আজব ভাক্কা/গড়ছে সাঁই মানুষ মাক্কা। কুদরতি নূর দিয়ে/ও তার চারধারে চার নূরের ইমাম/মধ্যে সাঁই বসিয়ে...।’ গানটির বিশ্লেষণে বলা হয়েছে: ‘ভাবের কথা ছাড়িয়া দিয়া এই সঙ্গীতটির শব্দবিন্যাস, হ্রস্ব ও দীর্ঘস্তরের সন্নিবেশ... ও ছন্দজ্ঞানের পাণ্ডিত্য পরিষ্কার হূদয়ঙ্গম করা যায় অথচ তিনি লেখাপড়া জানিতেন না।...এই দেহেই তিনি বিরাজিত, এই মানুষের মধ্যেই ভগবানের বিকাশ, ইহার মধ্যেই তাঁহার বিলাস এবং এই মানবজগৎ লইয়াই যে তাঁহার লীলাখেলা এই কথাই তিনি পুনঃ পুনঃ আলোচনা করিয়া গিয়াছেন।’ অর্ধশত বছর আগে লালনের গানের এমন মূল্যায়ন শ্লাঘা বৈকি।
আবুল আহসান চৌধুরী সম্পাদিত লালনচর্চার আকরগ্রন্থটি, লালন অনুরাগী ও লালনচর্চার সঙ্গে যুক্ত সবাইকে নতুন ভাবনা ও বোধের খোরাক জোগাবে। বসন্তকুমারের দৃষ্টিতে ও সম্পাদকের ভূমিকার আলোকে খুঁজে পাওয়া যাবে বাঙালি সংস্কৃতির পুরোধা লালন সাঁইকে।
মহাত্মা লালন ফকির—শ্রীবসন্ত কুমার পাল \ আবুল আহসান চৌধুরী সম্পাদিত \ পাঠক সমাবেশ \ প্রচ্ছদ: সেলিম আহমেদ \ বইটির পিডিএফ সংস্করন চলছে, আমার বই এ চোখ রাখুন অচিরেই অনলাইনে প্রকাশিত হবে।

আপনাদের সহযোগীতা আমাদের একান্ত কাম্য। তাই যদি বইটি ভালো লেগে থাকে তাহলে দুচার লাইন লিখে আপনার অভিমতগুলো জানিয়ে রাখুন আমাদের কমেন্টস বক্সগুলোতে। বন্ধু-বান্ধবদের বলুন এই সাইটটির কথা। আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমরা আরও অনেক বই নিয়ে আপনাদের সামনে আসতে পারবো। ধন্যবাদ।

Download Bangla books in pdf form mediafire.com and also read it online. Read it from iPad, iPhone. Lalon Fakir, Lalan fakir, Basantakumar Pal, Lalon Fakir Basantakumar pal, bangla ebooks, free download , mediafire , humayun ahmed , zafar iqbal , sunil gangopadhaya , suchitra , bengali ebooks, free bangla books online, ebooks bangla, bangla pdf, bangla books, boi, bangla boi, amarboi.
নতুন বই ইমেইলে পেতে হলে


Table of Contents
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

একাত্তরের ভিন্নতর অবলোকন

একাত্তরের ভিন্নতর অবলোকন

মফিদুল হক


১৯৭১ আমাদের জাতীয় জীবনের পরম গৌরবময় পর্ব, চরম দুঃসময়ের কালও বটে। একাত্তরের সেই ঘটনাধারার ছিল স্বাদেশিক, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক তাত্পর্য। আমরা একাত্তরকে দেখি মূলত আমাদের জাতীয়-বাস্তবতার মাটিতে দাঁড়িয়ে, কিন্তু এর ব্যাপকতর তাত্পর্য অনুধাবনে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক অবস্থান থেকে একাত্তর-অবলোকন বয়ে আনতে পারে ভিন্নতর উপলব্ধি, সঞ্চার করতে পারে গভীরতর তাত্পর্য। ভেতর থেকে দেখা ইতিহাস এবং বাইরের বিবেচনা ও ঘটনাধারার মিলনেই পাওয়া যেতে পারে পূর্ণাঙ্গ এক ছবি, যদিও ইতিহাস-বিচারে পূর্ণতায় পৌঁছার মতো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধি নেই, নিরন্তর চলে এর পুনর্বিচার, পুনর্মূল্যায়ন, যার ভিত্তি রচনা করে আহরিত নতুন নতুন তথ্য, নানা দৃষ্টিকোণ থেকে আলোকসম্পাত এবং এভাবে চলে অভ্যস্ত-ভাবনার পরিধিকে ক্রমাগত প্রসারিত করা, পাল্টে দেওয়া।

একাত্তর নিয়ে ভাবনার তোলপাড় জাগানিয়া গ্রন্থ সংখ্যায় বেশি মেলে না, আমাদের সৌভাগ্য তেমন একটি উপহার মিলল হাসান ফেরদৌস প্রণীত ১৯৭১: বন্ধুর মুখ শত্রুর ছায়া গ্রন্থের সুবাদে। এ গ্রন্থের অবলম্বন একান্তভাবে বাইরের অবলোকন, ক্ষমতার বিভিন্ন বিশ্বকেন্দ্রে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধসৃষ্ট অভিঘাত এবং ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া হয়েছে মূল বিবেচ্য। বিগত প্রায় এক দশকজুড়ে সংবাদপত্রে প্রকাশিত নিবন্ধের বাছাইকৃত সংকলন এটি। বিষয়ের সঙ্গে সাযুজ্যপূর্ণ ছোট-বড় বিভিন্ন রচনা মিলে গ্রন্থ আকারেও বেশ ভারিক্কি হয়েছে। তবে পাঠকের জন্য বড় পাওনা অনেক নতুন তথ্য ও বিশ্লেষণের নতুন দৃষ্টিকোণের সঙ্গে পরিচিত হওয়া। ভারত, পাকিস্তান, চীন এবং সর্বোপরি আমেরিকা ও জাতিসংঘ সদর দপ্তরে বাংলাদেশ প্রশ্ন নিয়ে নানা বিবেচনা, বিভিন্ন পক্ষের অবস্থান, তর্ক-বিতর্ক হয়েছে লেখকের বিবেচ্য। তবে এর অনেকটাই পর্দার অন্তরালের ছবি, যে চিত্র ধারণে প্রধান সূত্র হয়েছে সাম্প্রতিককালে অবমুক্ত বিভিন্ন গোপন দলিল, ইতিহাসের অংশীদারদের রচিত স্মৃতিভাষ্য, বিদেশে প্রকাশিত বইপত্র এবং সংবাদপত্রের রিপোর্ট। ফলে প্রচুর পাঠ নিতে হয়েছে লেখককে এবং তথ্যের জোগান দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ইতিহাস-বিশ্লেষকের দায়ও তাঁকে মেটাতে হয়েছে। এমন রচনা কোনো সহজ কাজ নয়, তদুপরি অধিকাংশ নিবন্ধ রচিত হয়েছে দৈনিক সংবাদপত্রের চাহিদা ও পাঠকের দিকে লক্ষ রেখে। ফলে তাত্ক্ষণিকতার সঙ্গে মিশেল ঘটাতে হয়েছে ইতিহাস-চেতনার এবং এই কাজে হাসান ফেরদৌস রেখেছেন অনায়াস-দক্ষতার পরিচয়। অন্যদিকে এমনি দক্ষতা এক ধরনের সীমাবদ্ধতাও আরোপ করে। এ ধরনের রচনার একটি ঘাটতির দিক হলো, শেষ বিচারে তা আর হয়ে ওঠে না ইতিহাসের বই, হয় ইতিহাস-বিষয়ক বই, নিদেনপক্ষে রিপোর্টিং অন হিস্টরি। বিচ্ছিন্ন সব ফুল নিয়ে পূর্ণ এক মালা গাঁথার কাজটুকু থেকে যায় আরদ্ধ, পাঠককে তা করার মতো পুষ্পহার জোগান দিয়ে যান লেখক, মালা তিনি গাঁথেন না, তবে সেই পুষ্পাঞ্জলিও এক বড় পাওয়া বটে।
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

Authors

 
Support : Visit our support page.
Copyright © 2021. Amarboi.com - All Rights Reserved.
Website Published by Amarboi.com
Proudly powered by Blogger.com