সাম্প্রতিক বইসমূহ
Showing posts with label Humayun Azad. Show all posts
Showing posts with label Humayun Azad. Show all posts

হুমায়ুন আজাদ সাক্ষাৎকার

amarboi
হুমায়ুন আজাদ সাক্ষাৎকার

হুমায়ুন আজাদ অভিনব অপ্রথাগত রীতিতে সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন এ-সময়ের চারজন প্রধান বাঙালির : অধ্যাপক আবদুর রাজ্জাক, ডক্টর আহমদ শরীফ, ঔপন্যাসিক শওকত ওসমান, ও কবি শামসুর রাহমানের । সাক্ষাৎকারগুলাে পেরিয়ে গিয়েছিলাে বাঙলাদেশি সাক্ষাৎকারের সীমাবদ্ধতা । এগুলােতে প্রথম দেখা গিয়েছিলাে যে সাক্ষাৎকারদাতা, ও গ্রহণকারী উভয়েই সমান গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষাৎকারে, এবং গ্রহণকারীর গুরুত্বের ওপরই নির্ভর করে সাক্ষাৎকারের মূল্য। এসব সাক্ষাৎকারে রুদ্ধ বঙ্গীয় সমাজের পাঁচজন মুক্ত মনে কথা বলেছেন সমাজ, রাজনীতি, সাহিত্য, শিল্পকলা, ধর্ম, জীবন, যৌনতা, ও আরাে বহু বিষয়, ও অন্তরঙ্গ জীবন সম্পর্কে । সাক্ষাৎকারেগুলাে হয়ে উঠেছে সময়ের দলিল, ও অপ্রকাশিত অন্তরের অকপট প্রকাশ। এ-সময়ের চারজন প্রধান বাঙলির অন্তলোক, ও তাঁদের উপব্ধির শিখায় বিশশতকের বাঙলাকে বুঝতে হলে আসতে হবে এ সাক্ষাৎকারগুলাে কাছে। এই প্রথম বাঙলাদেশে সাক্ষাৎকার হয়ে উঠেছে সৃষ্টিশীল ও মননশীল ।



বই নিয়ে শুধুমাত্র বই নিয়েই আমাদের এই প্রয়াস। ধ্বংস ও ধসের সামনে বই সবচেয়ে বড় প্রতিরোধ। বই আমাদের মৌলিক চিন্তাভাবনার শাণিত অস্ত্র। বইয়ের অস্তিত্ব নিয়ে চারিদিকে আশঙ্কা, বই নিয়ে শুধু মাত্র বই নিয়েই আমাদের এই প্রয়াস। ধ্বংস ও ধসের সামনে বই সবচেয়ে বড় প্রতিরোধ। বই আমাদের মৌলিক চিন্তাভাবনার শাণিত অস্ত্র। বইয়ের অস্তিত্ব নিয়ে চারিদিকে আশঙ্কা, নতুন প্রজন্ম চকঝমকের আকর্ষণে বইয়ের দিক থেকে ঘুরিয়ে নিচ্ছে মুখ। আমাদের এ আয়োজন বইয়ের সাথে মানুষের সম্পর্ককে অনিঃশেষ ও অবিচ্ছিন্ন করে রাখা। আশাকরি আপনাদের সহযোগিতায় আমাদের এই ইচ্ছা আরোও দৃঢ় হবে। দুনিয়ার পাঠক এক হও! বাংলা বই বিশ্বের বিবিধ স্থানে, সকল বাংলাভাষীর কাছে সহজলভ্য হোক!
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

নারী - হুমায়ূন আজাদ

নারী - হুমায়ূন আজাদ
নারী - হুমায়ূন আজাদ
বাংলাদেশে নারী আন্দোলনের পথিকৃৎ বেগম রোকেয়, শত বছর পূর্বেই তিনি বলে গেছেন, 'আপনারা হয়তো শুনিয়া আশ্চর্য হইবেন যে, আমি আজ ২২ বৎসর হইতে ভারতের সর্বাপেক্ষা নিকৃষ্ট জীবের জন্য রোদন করিতেছি। ভারতবর্ষে সর্বাপেক্ষা নিকৃষ্ট জীব কাহারা জানেন? সে জীব ভারত নারী। এই জীবগুলির জন্য কখনও কাহারও প্রাণ কাঁদে না।' তাঁর এই কথাকেই আবার সামনে নিয়ে আসেন প্রথাবিরোধী লেখক প্রয়াত হুমায়ুন আজাদ। তিনি তাঁর 'নারী' বইতে লিখেছেন আমাদের দেশের শৃঙ্খলিত নারী সমাজের কথা। বলেছেন, 'নারী সম্ভবত মহাজগতের সবচেয়ে আলোচিত পশু।' তিনি আরো বলেছেন, 'পুরুষ নারীকে দেখে দাসীরূপে, করে রেখেছে দাসী; তবে স্বার্থে ও ভয়ে কখনো কখনো স্তব করে দেবীরূপে। পুরুষ এমন প্রাণী, যার নিন্দায় সামান্য সত্য থাকতে পারে; তবে তার স্তব সুপরিকল্পিত প্রতারণা।'



This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

আমরা কি এই বাংলাদেশ চেয়েছিলাম - হুমায়ুন আজাদ

আমরা কি এই বাংলাদেশ চেয়েছিলাম - হুমায়ুন আজাদ
আমরা কি এই বাংলাদেশ চেয়েছিলাম - হুমায়ুন আজাদ
১৯৭১ ছিলো ১৯৪৭-এর সংশোধন; আমরা ওই বছর মুক্তিযুদ্ধে গিয়েছিলাম, একটি স্বাধীন দেশ প্রতিষ্ঠিত করেছিলাম। আমাদের অজস্র স্বপ্ন ছিলো—গণতন্ত্রের, সমাজতন্ত্রের, ধর্মনিরপেক্ষতার, বাঙালিত্বের, এবং সাধারণ মানুষের আর্থিক স্বচ্ছলতার। আমরা কোনো স্বপ্নকেই সফল করতে পারি নি। হত্যা করা হয়েছে বাঙলাদেশের স্থপতিকে, রক্তের বন্যা বয়ে গেছে; সামরিক স্বৈরাচারীরা এসে দেশকে পর্যুদস্ত করেছে। বর্তমানে বাঙলাদেশ বাস করছে ভয়াবহ মেঘমালার নিচে। হুমায়ুন আজাদ একান্ত ব্যক্তিগত ভঙ্গি ও ভাষায় বর্ণনা করেছেন বাঙলাদেশের বিপর্যয়ের ইতিবৃত্ত, লিখেছেন একটি বেতনাহত বই। এ-বই বাঙলাদেশের দেহ ও হৃদয়ের অপার বেদনার প্রকাশ;—হাহাকার নয় নিঃশব্দ রোদন।
Amra Ki Ei Bangladesh Cheyechilam Humayun Azad in pdf
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

ফুলের গন্ধে ঘুম আসে না - হুমায়ূন আজাদ

Fuler Gondhe Ghum Ashe Na by Humayun Azadকার্তিক ১৩৯২, নভেম্বর ১৯৮৫ সালে প্রকাশিত হুমায়ুন আজাদের লেখা ‍"ফুলের গন্ধে ঘুম আসেনা” শুধুমাত্র একটি বই নয় একটি অসম্ভব ধরনের সুন্দর ও আকর্ষনীয় কিশোর সাহিত্য যার প্রথম পৃষ্ঠা থেকে শেষ পৃষ্ঠা জুড়ে রয়েছে লেখকের ফেলে আসা শৈশব জীবনের চারপাশের মানুষের হাসি, আনন্দ, দুঃখ, কষ্ট, ভালোবাসা, কিয়ৎ ঘৃণা, অপরুপ নয়ন জুড়ানো রাড়িখাল গ্রামের বর্ণনা, সর্বোপরি বইটি যেন শৈশববেলার ধারাবিবরনীর এক টুকরো খণ্ডচিত্র। মোট ১৭ টি শিরোণামের কোলে লুকিয়ে থাকা ১৭ টি অংশে বিভক্ত এ বইটিতে হুমায়ুন আজাদ অত্যন্ত হৃদয়গ্রাহীভাবে তুলে ধরেছেন মন আকুল করা গাঁয়ের ডাক, ফুলের গন্ধের নমুনা, আড়িয়ল বিলের জলে প্রদীপ জ্বলার কথা, খেজুর ডালে প্রিয় শাদা বেলুন ফুঁটো হওয়ার কথা, টিনের চালে বৃষ্টি পড়ার ছন্দের সুরলহরী, গ্রামের সহজ সরল মুন্নাফ ভাইদের শিংয়ের পোকা ধরা সহ পূকপুকুরে মানুষের ঢলের কথা.....
“মৌলি, তোমাকে বলি, তোমার মতোই আমি এক সময় ছিলাম-ছোট, ছিলাম গাঁয়ে, যেখানে মেঘ নামে সবুজ হয়ে নীল হয়ে লম্বা হয়ে বাঁকা হয়ে শাপলা ফোটে; আর রাতে চাঁদ ওঠে শাদা বেলুনের মতো। ওড়ে খেজুর গাছের ডালের অনেক ওপরে। যেখানে এপাশে পুকুর ওপাশে ঘরবাড়ি। একটু দূরে মাঠে ধান সবুজ ঘাস কুমড়োর হলদে ফুল। একটা খাল পুকুর থেকে বের হয়ে পুঁটিমাছের লাফ আর খলশের ঝাঁক নিয়ে চলে গেছে বিলের দিকে। তার উপর একটি কাঠের সাঁকো। নিচে সাঁকোর টলোমলো ছায়া। তার নাম গ্রাম”

বড় মেয়ে মৌলিকে বলার ঢঙ্গেই শুরু করেছেন ফুলের গন্ধ অধ্যায়টি, এঁকেছেন গাঁয়ের ছবি। ছবিখানা এখনকার কোন ছবি নয় আজ থেকে পাক্কা বছর পঞ্চাশেক পূর্বের ধ্রুবতারার মতোন মনের আবেশে ভর করা আশ্বিনের সাদা মাখন জোৎস্না আর হিম মাঘের ওশ-মাখা বাতাসে ভরপুর কোন গাঁয়ের ছবি। যে গাঁয়ে ছিল শিশিরের আস্তরণ, কচুরি ফুলের শোভা, নালি বেয়ে ফোঁটা ফোঁটা ঝরে পড়া খেজুর রসের ঘ্রাণ, লেবুতলার গন্ধ, সরপুঁটির মন উজাড় করা অপূর্ব লম্ফ-ঝম্ফ, শাঁই শাঁই করে ছুটে আসা রাগী বোশেখের তান্ডব, পুকুরে জ্বলা শতোশতো প্রদীপ-ঝাড়বাতি, ঢল ঢল কাঁচা লাউডগার অনেক দূরে যাবার স্বপ্ন, ছিল শেকড় ছাড়িয়ে ভিটে পেরিয়ে দিগন্তের দিকে ছুটে চলা এক দীর্ঘ সবুজ চঞ্চল সুদূরপিয়াসী স্বপ্ন। দারুনভাবে বর্ণিত হয়েছে পৌষের কুয়াশার চুলোর পাড়ের ওম, খেজুর রস জ্বাল দেয়ার মধুময় সন্ধেটার অপূর্ব হাতছানির দুলুনি, সঙ্গে পিঠে শিল্পী মা, পানু আপা আর নুরু আপাদের দুর্দান্ত কারুকাজ:

“পৌষের কুয়াশায় চুলার পাড়ে কি যে সুখ! আমার চোখ পড়ে চুলার ভেতরের দৃশ্যের ওপর। চারপাশ তখন স্বাদে ভরা-রসের ঘ্রাণ, নারকোলের সুগন্ধ,ঘন দুধের গাঢ় ঘ্রাণ। আর ঐ চুলার ভেতরে দাউ দাউ জ্বলছে সৌন্দর্য। চুলার ভেতরে কি ফুটেছে একলক্ষ গোলাপ? লাল হয়ে উঠেছে কৃষ্ণচূড়ার বাগান? না, চুলার ভেতরে দাউদাউ জ্বলছে সুগন্ধি আমকাঠের চলা; আর তার টুকরোগুলো বিশাল দামি হীরকখণ্ডের মতো দগদগ করছে”

যে-দিন পুকুরে মানুষ নামে শিরোনামের কোলজুড়ে এসেছে চৈত্র মাসের কোন একদিন হৈ-হুল্লোড় করে পুবপুকুরে আশপোশের গ্রাম থেকে আসা মানুষদের পল দিয়ে একসঙ্গে মাছ ধরার বর্ণনা। লেখক আশ্চর্য দক্ষতায় এঁকেছেন মাছ মেরে চলে যাওয়ার পর ভীষণ বিষন্ন দেখানো পুবপুকুরের অদ্ভুত হয়ে থাকা ঘোলা জলের দৃশ্য। এ অধ্যায়টি ভীষনভাবে মন খারাপ করে দেয় যেখানে প্রিয় আজাদ ছিঁড়েফাড়া কচুরিপানাগুলোকে তুলনা করেছেন সাতাশে মার্চ, ১৯৭১ এ নিরুদ্দেশ পথে যাত্রা শুরু করা ভীত, ছন্নছাড়া মানুষদের দলের সঙ্গে। যারা ছুটে চলেছে দিক সীমানা বিহীন।

বইটিতে লেখক আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়েছেন গ্রাম আর শহরের মধ্যবর্তী বিস্তর ফারাক, শৈশবের নিষ্পাপ চোখে দেখেছেন ক্ষুধায় কাতর জোলাবাড়িসহ তার আশপাশ। ক্ষুধায় কাতর মানুষদের ভাতের প্রতি মুগ্ধতা দেখে তুলনা করেছেন হীরে-পান্না-মণি-মাণিক্য সদৃশ। গ্রাম কবিকে ডেকেছে, সেই সঙ্গে আমাদেরও। ভরা বর্ষার মুগ্ধতার পাশাপাশি বর্ণনা করেছেন তার নানা বাড়ি কামারগাঁয়ের কথা, কীর্তিনাশা পদ্মার বুকে ইলশা মাছের নাওয়ের ভীষণ কাটালের সঙ্গে মুখোমুখি হওয়ার কথা, ফাগুন-চৈত্র-বৈশাখে ধূসর ও হাহাকার ভরা সময়ে জলধিকুটিরে সময় ক্ষেপন করার কথা। পড়তে পড়তে শুধুমাত্র মনে হয় এটা শুধু সাবলীল বর্ণনাই নয় আরো বেশী কিছু হয়তোবা কিছু ছাপছিত্রের অপূর্ব সমন্বয়। লেখক তার আশেপাশের সময়কে ব্র্যাকেটবন্দী করে আমাদেরকে নিয়ে যাচ্ছেন তার প্রিয় রাড়িখালে, জগদীসচন্দ্র বসুর রাড়িখালে, তার পানু আপার রাড়িখালে।

“গ্রাম মরে যাচ্ছে। গ্রামেরা মরে যাচ্ছে। মরে যাচ্ছে রাড়িখাল। ছিলো একটি মিষ্টি মেয়ের মতো-খুব রূপসী-চাঁদের মতো। কোন মড়কে ধরলো তাকে! তার চোখ বসে যাচ্ছে, কালচে দাগ চোখের চারপাশে। সে গোলগাল মুখটি নেই, কেমন শুকনো। এখনি ঢলে পড়ে যাবে যেনো। গ্রাম মরে যাচ্ছে। মরে যাচ্ছে রাড়িখাল। তার বুকের ভেতর কোন অসুখ বাঁধলো বাসা? খুঁটেখুঁটে কুরেকুরে খাচ্ছে তাকে কোন অসুখ? সে কি একেবারে মরে যাবে? ঢুকবে কবরে? তাকে ঘিরে রাতভর চিৎকার করবে কয়েকটা লালচে শেয়াল?”

আমাদেরকে গ্রামের অপূর্ব মাদকতাময় কিছু হাতছানির বর্ণনা দেয়ার পাশাপাশি শেষদিকে লেখক বইটিতে কিছু ঘৃণার বহি:প্রকাশ ঘটিয়েছেন শকুন আর শেয়ালের প্রতি, কষ্টের প্রকাশ ঘটিয়েছেন প্রিয় বাবার প্রতি। কষ্টের আখ্যান ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে পুরো বইটি জুড়ে, ঝরেছে দীর্ঘশ্বাস। অসাধারন বইটিতে রাড়িখাল শুধু প্রিয় হুমায়ূন আজাদের গ্রাম এ পরিচয়ে আর আবদ্ধ থাকে না, অসাধারন বর্ণনার মাধ্যমে হয়ে ওঠে সর্বজনীন, হয়ে ওঠে সকল পাঠকের গ্রাম। প্রিয় রফিকুন নবীর অসাধারন স্কেচ আর প্রিয় হুমায়ুন আজাদের অনন্ত ইচ্ছার সঙ্গে তাই সুর মিলিয়ে বলে উঠি:

“আমি কত ডাক পারি। তুমি হুমইর দ্যাওনা ক্যান? তোমারে ভুলুম ক্যামনে? তুমি ভুইলা যাইতে পার, আর আমিতা পারুমনা কোনো কাল। আমি আছিলাম পোনর বচ্ছর ছয় মাস তোমার ভিৎরে। থাকুম পোনর শ বচ্ছর....রাড়িখাল। রাড়িখাল। তুমি ক্যান হুমইর দ্যাওনা ”
বইঃ ফুলের গন্ধে ঘুম আসেনা
লেখকঃ হুমায়ুন আজাদ
ধরনঃ কিশোরসাহিত্য
প্রচ্ছদঃ সমর মজুমদার

This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

জলপাই রঙের অন্ধকার - হুমায়ুন আজাদ

amarboi জলপাই রঙের অন্ধকার - হুমায়ুন আজাদ
প্রকৃতিতে জলপাই রঙ মেদুর, স্নিগ্ধতার প্রতীক। এখন ওই প্রতীকটির ওপরও হানা দিয়েছে সামরিকেরা। জীবনের ওপর তো হানা দিয়েছেই, স্বপ্নকে আক্রমণ করেছে; পৃথিবী জুড়ে মানুষের বাস্তব ও স্বপ্ন এখন বুটের নিচে পিষ্ট। আমাদের দুর্গতির বড়ো কারন সামরিক শাসন। সামরিক শাসন জাতির বাস্তবতাকে পঙ্গু করে, স্বপ্নকে বিকলাঙ্গ করে, সৃষ্টিশীলতাকে হত্যা করে। হুমায়ুন আজাদ, তাঁর সময়ের একমাত্র অকপট লেখক। এ গ্রন্থটির প্রত্যেকটি প্রবন্ধে রেখেছেন সামরিকতার বিরুদ্ধে তাঁর আপসহীনতার স্বাক্ষর।




Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

বাক্যতত্ত্ব - হুমায়ুন আজাদ

বাক্যতত্ত্ব - হুমায়ুন আজাদ বাক্যতত্ত্ব - হুমায়ুন আজাদ

হুমায়ুন আজাদের 'বাক্যতত্ত্ব’ যা বাংলা ভাষায় লেখা একটি অসাধারণ গ্রন্থ, সম্ভবত এই বইয়ের মাধ্যমেই বাংলাভাষীরা প্রথম পরিচিত হয় রুপান্তর মূলক সৃষ্টিশীল ব্যাকরণের সাথে, নোয়াম চমস্কির তত্ত্ব ও তথ্যের সাথে। 'বাক্যতত্ত্ব' প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৮৪ সালে। এর আগেই এই তত্ত্বের কাঠামোর উপর ভিত্তি করে এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ে হুমায়ুন আজাদের পিএইচডি অভিসন্দর্ভ Pronominalization in Bengali প্রকাশিত হয় ।
সূত্রঃ Kungo Thang




Download and Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

বাঙলা ভাষার শত্রুমিত্র - হুমায়ূন আজাদ

বাঙলা ভাষার শত্রুমিত্র হুমায়ূন আজাদ বাঙলা ভাষার শত্রুমিত্র হুমায়ূন আজাদ

হুমায়ুন আজাদ বাংলাদেশের প্রথাবিরোধী ও বহুমাত্রিক লেখক। তিনি কবি, ঔপন্যাসিক, ভাষাবিজ্ঞানী, সমালোচক যার রচনার পরিমান বিপুল। জন্ম বিক্রমপুরের রাড়িখালে। ডক্টর হুমায়ুন আজাদ ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ও সভাপতি। এই বইটিতে হুমায়ূন আজাদ বাংলাভাষা নিয়ে প্রচুর আলোকপাত করেছেন।




Download and Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

হুমায়ুন আজাদ সম্পাদিত আধুনিক বাঙলা কবিতা

হুমায়ুন আজাদ
সম্পাদিত
আধুনিক বাঙলা কবিতা
হুমায়ুন আজাদ
সম্পাদিত
আধুনিক বাঙলা কবিতা

ভূমিকা

বিশশতকের বাঙালির প্রতিভার মহত্তম সৃষ্টি আধুনিক বাঙলা কবিতা। শুধু বিশশতকের নয়, হাজার বছরের বাঙলা কবিতা মূল্যায়ন করলেও বোধ করি যে আধুনিক বাঙলা কবিতার থেকে অভিনব ও উৎকৃষ্ট কবিতা লেখা হয় নি আর কোনাে শতকে। মাত্র সাড়ে ছ-দশকে আধুনিক কবিতার যে-উৎপাদন ঘটে, রবীন্দ্রনাথকে মনে রেখেও বলছি, উৎকর্ষে ও পরিমাণে তার তুলনা দুর্লভ। আধুনিক বাঙলা কবিতা বিশ্বের অন্যান্য ভাষার আধুনিক কবিতার মতোই অভিনব ও বিস্ময়কর, এবং বিপর্যয়করও; তবে বিস্ময়ের মাত্রা বাঙলায় অনেক বেশি। আধুনিক বাঙলা কবিতার সাথে জড়িত একটি বিস্ময় হচ্ছে একই দশকে পাঁচজন মহৎ কবির আবির্ভাব, আগে যা কখনো ঘটে নি; বাঙলা কবিতাকে একজন মহৎ/প্রধান কবির জন্যে অপেক্ষা করতে হয়েছে শতাব্দীর পর শতাব্দী, তাই এক দশকে পাঁচজন মহৎ কবির আবির্ভাব যারপরনাই বিস্ময়কর। বাঙলার মহৎ/প্রধান কবিদের তালিকাটি হবে এমন : বড়ু চণ্ডীদাস, চণ্ডীদাস, বিদ্যাপতি, জ্ঞানদাস, গোবিন্দ দাস-পদাবলির পাঁচজন; মুকুন্দরাম চক্রবর্তী, বিজয় গুপ্ত, ভারতচন্দ্র রায়-মঙ্গলকাব্যের তিনজন; মাইকেল মধুসূদন দত্ত—মহাকাব্যের একজন; রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর-রোম্যান্টিক কবিতার একজন; এবং জীবনানন্দ দাশ, অমিয় চক্রবর্তী, সুধীন্দ্রনাথ দত্ত, বুদ্ধদেব বসু, বিষ্ণু দে-আধুনিক কবিতার পাঁচজন। বাঙলা কবিতার শ্রেষ্ঠ পনেরোজন কবির পাঁচজনই আধুনিক ধারার, এটা অত্যন্ত বিস্ময়কর এজন্যেও যে পদাবলির পাঁচজনের জন্যে দরকার হয়েছে চার শতাব্দী, মঙ্গলকাব্যের তিনজনের জন্যে তিন শতাব্দী; অতিসৃষ্টিশীল রোম্যান্টিক ধারায় তিন-চারজন প্রধান কবির জন্ম স্বাভাবিক ছিলো, সে-স্বাভাবিক ঘটনাটি বাঙলায় ঘটে নি বাঙলার বিলম্বিত রোম্যান্টিকতার জন্যে, জন্মেছেন একজন, যদিও তিনি একলাই দু-তিনজনের কাজ চমৎকারভাবে সম্পন্ন ক'রে গেছেন; আর ১৮৯৯-১৯০৯ অব্দের মধ্যে ভূমিষ্ঠ হন। আধুনিক কবিতাধারায় পাঁচজন, যাঁরা বিশশতকের তৃতীয় দশকে দেখা দেন কবিরূপে। তাঁদের মহত্ত্ব সম্পর্কে আর সন্দেহ পোষণের কারণ দেখি না, যদিও আমাদের সমকালীন বলে তাঁদের মহত্ত্ব স্বীকার করতে দীর্ঘকাল ধরে আমরা দেখিয়েছি বাঙালিসূলভ কৃষ্ঠা। তাঁরা ছাড়াও আধুনিক কবিতাধারায় আবির্ভূত হন গুরুত্বপূর্ণ ও কিছু-কম-গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকজন কবি, এবং আধুনিক কবিতা অর্জন করে বাঙলা কবিতার শ্ৰেষ্ঠ শস্য বলে গণ্য হওয়ার যোগ্যতা। প্রথাগত বিষয়গুলোকেই আজো আমরা বড়ো মনে করি, অতীতের তুচ্ছ অর্জনগুলোকেও দেখি অতিশায়িত করে, বর্তমানের অর্জনকে গুরুত্ব দিতে চাই না, তাই আধুনিক বাঙলা কবিতার মহিমা আজো আমরা বুঝে উঠতে পারি নি। এ-কবিতা উপলব্ধি ও শিল্পিতায় উৎকৃষ্ট মধ্যযুগের যে-কোনো ধারার কবিতার থেকে, আর মধুসূদন ও রবীন্দ্রনাথের ব্যক্তিগত সাফল্য সত্ত্বেও বাঙলা মহাকাব্যিক ও রোম্যান্টিক কবিতার থেকে অনেক উন্নত আধুনিক বাঙলা কবিতা। আধুনিক কবিতাপূর্ব বাঙলা কবিতা মৰ্মত অপ্রাপ্তবয়স্কতার কবিতা, আধুনিক বাঙলা কবিতায়ই প্রথম বাঙলা কবিতা হয়ে ওঠে প্রাপ্তবয়স্কতার কবিতা । এ-কবিতা বিশশতকের কবিতা, এ-কবিতায়ই প্ৰকাশ পেয়েছে বিশশতকের সংবেদনশীলতা, এতেই পাই বিশশতকের আপনি শিল্পকলা। তবে আধুনিক বাঙলা কবিতা শুধু বিশশতকেই সীমাবদ্ধ নয়, এর এক বড়ো অংশ চিরকালীনতা দাবি করতে পারে।
যে-সংবেদনশীলতা পরিচিত আধুনিকতা নামে, তার অবসান ঘটেছে বা ঘটতে যাচ্ছে; এখন হিশেবে ক’রে দেখতে পারি কী ফসল ফলেছে গত সাড়ে ছ-দশকে। আমাদের সাংস্কৃতিক মান বেশ নিম্ন, এবং ক্রমশ আমরা এগিয়ে যাচ্ছি নিম্নতর সংস্কৃতির দিকে, তাই আধুনিক কবিতার সুফল ফ'লে যাওয়ার পরও আধুনিক কবিতাকে আমরা সাদরে গ্রহণ করতে পারি নি, বা উপযুক্ত হয়ে উঠতে পারি নি আধুনিক বাঙলা কবিতার সংস্কৃতির। আমাদের রাজনীতি, শিক্ষা, অর্থনীতি, জীবনরীতি দায়ী এর জন্যে। আমাদের বিদ্যালয়গুলোর কথা ছেড়ে দিচ্ছি, বিদ্যালয়গুলোতে কোমলমতি বালকবালিকাদের নিকৃষ্ট গদ্য পড়ানোই রীতি; আমাদের মহাবিদ্যালয়, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও আধুনিক কবিতাবিরূপতা প্ৰকট; -ওখানে রঙ্গলাল, ঈশ্বরগুপ্ত, কায়কোবাদ, সৈয়দ এমদাদ আলি, বেগম রোকেয়া, বন্দে আলি মিয়া, সুফিয়া কামালকেও কবি ব’লে স্বীকার করা হয়, তাঁদের নিম্নপদ্য সংকলিত হয় বিশ্ববিদ্যালয়ী সংকলনে, পাঠ্যও হয়; কিন্তু আধুনিক কবিতা স্বাগত হয় না, অধিকাংশ আধুনিক কবি --অসংকলিত থাকেন, বা সংকলিত হন ধান্দাবাদী সমকালীন অকবিরা। আধুনিক কবিতা সংকলনের সম্পাদকেরাও পরিচয় দিয়ে থাকেন দ্বিধা আর ভীরুতার; অন্যাধুনিক প্রথাগত কবিতাও তাঁরা নেন। আধুনিক কবিতার সংগ্রহে, সৃষ্টি করেন বিভ্রান্তি; আধুনিক কবিতা যে একটি স্বতন্ত্র কবিতাধারা, তা বুঝতে দেন না পাঠকদের; যেমন বুদ্ধদেব বসুর সম্পাদিত আধুনিক বাংলা কবিতা (১৯৫৪), যেটি সবচেয়ে জনপ্রিয় ও প্রভাবশালী সংকলন আধুনিক বাঙলা কবিতার। এটি আধুনিক কবিতাকে পৌঁছে দিয়েছে পাঠকদের কাছে, আবার কাজ করেছে আধুনিক কবিতার বিরুদ্ধেও। এটি শুরু হয়েছে রবীন্দ্রনাথকে দিয়ে, যা এক বড়ো ভ্ৰান্তি; রবীন্দ্রনাথ মহৎ কবি সন্দেহ নেই, আর এতেও সন্দেহ নেই যে তিনি আধুনিক নন, রোম্যান্টিক; তাই স্থান পেতে পারেন না আধুনিক বাঙলা কবিতার সংগ্রহে। রবীন্দ্রনাথ ছাড়াও এ-সংকলনে রয়েছেন প্রমথ চৌধুরী, অবনীন্দ্রনাথ, যতীন্দ্রমোহন বাগচী, সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত, সুকুমার রায়, যতীন্দ্রনাথ সেনগুপ্ত, মোহিতলল মজুমদার, নজরুল ইসলাম, জসীমউদ্দীনের মতো অনেকে, যাঁরা আধুনিক নন যদিও কবিতা লিখেছেন বিশশতকে;-সংকলনটিতে পাঠকেরা নানা রকম কবিতা পড়ার সুযোগ পেয়েছেন, কিন্তু আধুনিক কবিতা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পান নি। এ-সংকলনের শুরুতে রবীন্দ্রনাথ ও নানা অনাধুনিকের উপস্থিতি আধুনিক কবিতাকে স্বাধীন স্বতন্ত্র ধারার কবিতারূপে প্রতিষ্ঠিত হ’তে দেয় নি; পাঠকেরা বুঝে উঠতে পারেন নি আধুনিক কবিতার মহিমা। রবীন্দ্রনাথ, জীবনানন্দ, সুধীন্দ্রনাথ, জসীমউদদীন যদি আধুনিক হন, একই সাথে, তাহলে আধুনিকতা হয়ে ওঠে হাস্যকর ব্যাপার, যদিও আধুনিক কবিতা এমন কোনো কৌতুককর খিচুড়ি নয়।
আধুনিক বাঙলা কবিতা এক আন্তর্জাতিক প্রপঞ্চের বঙ্গীয় রূপ, ওই প্ৰপঞ্চের নাম আধুনিকতা বা আধুনিকতাবাদ, যার উদ্ভব ঘটে পশ্চিমে, এবং ছড়িয়ে পড়ে সারা পৃথিবীতে। আমাদের ভাগ্য যে বাঙলা কবিতা ওই প্রপঞ্চের বাইরে থাকে নি, বরং থেকেছে অত্যন্ত ভেতরে, এবং সুফল ফলিয়েছে কবিতার। রোম্যান্টিক আন্দোলনের পর সবচেয়ে ব্যাপক ও সফল সাহিত্যশিল্পান্দােলন আধুনিকতা বা আধুনিকতাবাদ, যা গ্ৰহ জুড়ে সৃষ্টি করেছে অভিনব অসামান্য সাহিত্য ও শিল্পকলা; তার অবসান ঘটে গেছে দু-তিন দশক আগে, তবে রোম্যান্টিকতাকে যেমন আমরা সম্পূর্ণ মুছে ফেলতে পারি নি, তেমনি এখনো আমরা বাস করছি আধুনিক সাহিত্যের মধ্যেই। আধুনিকতাবাদ এক বহুমাত্রিক শিল্পসাহিত্যান্দোলন, যার বিকাশ ঘটেছে নানা রূপে, নানা রীতিতে।
পশ্চিমে আধুনিকতাবাদের কাল ব'লে অনেকে ধরেন ১৮৯০-১৯৩০ পর্বকে, অনেকে বিশশতকের প্রথম পাঁচশ বছরকে গণ্য করেন আধুনিকতাবাদের কাল ব’লে, আবার কেউ মনে করেন ১৯১০-১৯২৫ হচ্ছে এর স্বর্ণযুগ। আধুনিকতাবাদের চারিত্র হচ্ছে সাহিত্যসংস্কৃতির ক্ষেত্রে প্রথাগত রাষ্ট্রসীমা ভেঙে ফেলা, এর স্বভাব আন্তর্জাতিকতা। প্রত্যেক কালেরই থাকে নিজস্ব স্বভাব ও সংবেদনশীলতা, তখনই আমরা একটি ভিন্ন কালে পৌছি। যখন বদল ঘটে ওই স্বভাব ও সংবেদনশীলতার। এমন বদল নিয়মিত ঘ’টে চলছে সাহিত্য, শিল্পকলা, চিন্তার ইতিহাসে। কয়েক দশক পরপর-সাহিত্য, শিল্পকলা, চিন্তার এলাকায়-ঘটে সংবেদনশীলতার পরিবর্তন, আর আমরা এক শিল্প, সাহিত্য, চিন্তা থেকে পৌছি আরেক শিল্প, সাহিত্য, চিন্তায়। তবে এ-পরিবর্তনগুলো একই মাত্রার নয়, সংবেদনশীলতা বদলের তিনটি মাত্ৰা চোখে পড়ে। প্রত্যেক দশকে প্রত্যেক প্রজন্ম একধরনের বদল নিয়ে আসে সংবেদনশীলতার, নিয়ে আসে প্রজন্মের দশকি ফ্যাশন; তা প্রজন্মের সাথে আসে আর তারই সাথে চ'লে যায়, এক দশক তার আয়ু। এ-বদল কোনো মৌল বদল নয়। এর চেয়ে বড়ো মাত্রার বদল ঘটে কয়েক প্রজন্ম, সাধারণত এক শতাব্দী, ধ’রে, যাতে ঘটে সংবেদনশীলতা ও রীতির গভীরতর ও ব্যাপক বদল, যা স্থায়ী হয় দীর্ঘ কাল ধ’রে। এ-বদল বেশ বড়ো মাত্রার; এটা সংবেদনশীলতার শতকি পরিবর্তন। কখনো কখনো সংবেদনশীলতার ঘটে এর থেকেও অনেক বড়ো মাত্রার বদল, বিশাল বাদল, সহস্রকে দু-একবার; ঘটে সংস্কৃতির ভয়াবহ ভাঙাগড়া, যার ফলে মহৎ চিরস্থায়ী ব’লে গণ্য কীর্তিগুলোও হঠাৎ ধ’সে পড়ে, অতীত পরিণত হয় ধ্বংসস্তুপে, মহৎ সমাধিক্ষেত্রে। এমন বিশাল মাত্রার বদল এতোদিনের সভ্যতাসংস্কৃতি সম্বন্ধে প্রশ্ন তুলে ধরে, তাকে আর গ্রহণযোগ্য মনে করে না; তাকে বাদ দিয়ে নিজে সৃষ্টি করতে থাকে সম্পূর্ণ অভিনবকে, যা আগে কখনাে ভাবনায় আসে নি। আধুনিকতাবাদ এ-তৃতীয় মাত্রার বিশাল বদল ঘটায় সংবেদনশীলতার, সৃষ্টি করে এক অভিনব শিল্পকলা, যার মুখোমুখি অসহায় বোধ করে প্রথাভ্যস্ত শিল্পকলানুরাগীরা। আধুনিকতাবাদ শুধু অভিনবভাবে আসে নি, এসেছিলো বিপর্যয় সৃষ্টি ক’রেও। আধুনিকতাবাদের আগে, পশ্চিমে, শিল্পকলার জগতে বিপ্লব ঘটেছে প্রত্যেক শতকেই, বদলও ঘটেছে সংবেদনশীলতার, কিন্তু তা কোনাে বিপর্যয় সৃষ্টি করে নি, ওই বদল ঘটে স্বাভাবিকভাবে; আধুনিকতাবাদ আসে এক মহাবিপ্লবরূপে, যা আগের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে সম্পূর্ণরূপে। এর স্বভাব বিপর্যয়কর।
আধুনিকতাবাদী শিল্পসাহিত্য পূর্ববর্তী সাহিত্যশিল্পকলার ধারাবাহিক পরিণতি নয়, তা হঠাৎ সম্পর্ক ছিন্ন করে ঐতিহ্যের সাথে। আধুনিকতাবাদী শিল্পকলা খোলাখুলিভাবে বর্জন করে ইউরোপের পাঁচ শতাব্দীর উদ্যোগকে; তাই আধুনিকবাদ হচ্ছে পশ্চিমের ইতিহাসের সবচেয়ে বড়ো বিভাজনরেখা;-অন্ধকার যুগ ও মধ্যযুগের, আর মধ্যযুগ ও রেনেসাঁসের মধ্যে যে-পার্থক্য তার চেয়ে বেশি পার্থক্য আধুনিকতাবাদী ও তার পূর্ববর্তী যুগের। আর কোনাে যুগ এমন শিল্পকলা সৃষ্টি করে নি, যা ওই যুগে গণ্য হয়েছে ভয়ংকর বিহ্বলকরভাবে অভিনব ব’লে, যেমন ভয়ংকর বিহ্বলকরভাবে অভিনব শিল্পকলা সৃষ্টি হয়েছে আধুনিকতাবাদী পর্বে। প্রত্যেক কালই রচনা করে তার নতুন কবিতা, আধুনিক কবিতাও নতুন; তবে প্রত্যেক কালের নতুন কবিতার থেকে এ-কবিতার পার্থক্য হচ্ছে আধুনিক কবিতা নতুন মাত্রায় নতুন, অভিনবভাবে অভিনব । পশ্চিমে পূর্ববর্তী শিল্পকলা ও আধুনিক শিল্পকলার বিভাজন ঘটতে শুরু করে ১৮৫০-এর দিকে, যখন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে ধ্রুপদীরীতির লেখা। আগের শিল্পকলা ও আধুনিক শিল্পকলার মধ্যে যে ঘটে গেছে মহাবিভাজন, এতে কারো দ্বিমত নেই; তবে আধুনিক পরিস্থিতির প্রকৃতি, এবং শিল্পকলার স্বভাব ও আঙ্গিকের ওপর ওই পরিস্থিতির ফল সম্পর্কে দ্বিমত রয়েছে। আধুনিকতাবাদের চারিত্র সম্পর্কে বিভিন্ন মত থাকলেও নাম নিয়ে মতভেদ নেই, পশ্চিমে মডার্ন’ বা তার কোনো সাধিত রূপ দিয়ে এ-শিল্পকলাকে নির্দেশ করা হয়; পাওয়া যায় আধুনিক আন্দােলন, আধুনিক ঐতিহ্য, আধুনিক যুগ, আধুনিক শতাব্দী, আধুনিক মেজাজ, আধুনিকতাবাদ, বা শুধুই আধুনিক প্রভৃতি অভিধা। ইংরেজি “মডান” আর বাঙলা “আধুনিক” শব্দ দুটি আর্থগতিশীল, তা বিশেষ কোনো স্থির কাল নির্দেশ না ক’রে যে-কালই আসে, নির্দেশ করে তাকেই; ‘অধুনা’ থেকে গঠিত ‘আধুনিক’ বোঝায় ‘এখনকার, সাম্প্রতিক’, তবে ‘আধুনিকতাবাদ’ প্রত্যেক সাম্প্রতিক কালের বৈশিষ্ট্য নয়, বিশশতকের বিশেষ সময়ে যে-প্ৰপঞ্চ দেখা দিয়েছিলো, তাই আধুনিকতা বা আধুনিকতাবাদ। আধুনিকতা বা আধুনিকতাবাদ নাম নিয়ে দ্বিমত নেই; তবে আধুনিকতাবাদের কী, কেনো, কখন, কোথায় সম্পর্কে মতের শেষ নেই। অন্যান্য কালের স্বভাব রীতির এককতা, আর আধুনিকতার স্বভাব রীতির বৈচিত্র্য; তার কারণ আধুনিকতাবাদ একক আন্দােলন নয়, একরাশ আন্দােলনের-ইমপ্রেশনিজম, অভিব্যক্তিবাদ, কিউবিজম, ভবিষ্যদ্বাদ, প্রতীকবাদ, চিত্ৰকল্পবাদ, ভর্টিসিজম, দাদাবাদ, পরাবাস্তবতাবাদ ও আরো নানা শিল্পকলাবাদের-সমষ্টি । এ-সব বাদের মধ্যে মিল রয়েছে এখানে যে প্রতিটি আন্দোলনই বাস্তবতাবাদ ও রোম্যান্টিকতাবিরোধী, ও বিমূর্ত৷তামুখি; এ ছাড়া এগুলোর মধ্যে মিলের থেকে অমিল বেশি, এবং অনেকগুলো পরস্পরবিরোধী ।
শিল্পকলার ইতিহাসে আধুনিকতাবাদই আয়ত্ত করতে চেয়েছে সবচেয়ে উন্নত । নান্দনিক আত্মচেতনা, এটা করতে গিয়ে বাদ দিয়েছে অবিকল উপস্থাপনরীতি, যা সৃষ্টি করেছে বিপৰ্যয়। প্রথাগত সমস্ত শিল্পকলার লক্ষ্য অবিকল উপস্থাপন, বাস্তবের অনুকরণ; এমনকি রোম্যান্টিকেরা যদিও বাস্তবের অনুকরণ বাদ দিয়ে জ্ব’লে উঠতে চেয়েছিলেন দীপশিখার মতো, দর্পণের বদলে হ’তে চেয়েছিলেন প্ৰদীপ, তাঁরাও বেশি দূরে যান নি। আধুনিকতাবাদী শিল্পকলা জীবনের গভীরে প্রবেশ করার জন্যেই দূরে স’রে যায় বাস্তবতা ও মানবিক উপস্থাপনা থেকে, এগিয়ে যায় রীতি, কৌশল, ও স্থানিক রূপের দিকে। এতে ঘটে নান্দনিক পরিশীলন, ঘটে শিল্পকলার বিমানবিকীকরণ; শিল্পকলা থেকে ক্রমিকভাবে বাদ দেয়া হয় মানবিক উপাদান। আধুনিকতাবাদের আগে আর এখনো অধিকাংশ সাহিত্যউপভোগী শিল্পের নামে উপভোগ করেন মানবিক উপাদান, তার প্ররোচনায় তাঁরা হাসেন কাঁদেন, শিল্পকলা উপভোগ করেন না। আধুনিকতাবাদ চেয়েছে মানবিক উপাদানের বদলে শিল্পকলা উপভোগ করাতে। “বিমানবিকীকরণ” সম্পর্কে ভুল ধারণা রয়েছে অনেকের, তাঁরা মনে করেন এর অর্থ ‘অমানবিক’; বিমানবিক অমানবিক নয়, বিমানবিক হচ্ছে মানবিক উপাদানের অভাব। আধুনিকতা আঙ্গিকের চরম বদল ঘটিয়ে তাকে কোলাহলের কাছাকাছি নিয়ে এসেছে কখনাে কখনাে; অর্থাৎ আধুনিকতাবাদ শিল্পকলার নতুন রীতিই শুধু নয়, রীতির মহৎ বিপর্যয়ও । এর পরীক্ষানিরীক্ষা শুধু পরিশীলন, দুরূহতা, অভিনবত্ব সৃষ্টি করে নি, সৃষ্টি করেছে। অন্ধকার, বিচ্ছিন্নতা, বিনষ্টি। শিল্পকলায় যে-সংস্কৃতিসংকট রোম্যান্টিকতার কাল থেকে চ’লে আসছিলো, তা চরম পরিণতি লাভ করে আধুনিকতাবাদে। তবে আধুনিকতাবাদ বিশশতকের শিল্পকলা, কেননা তা সাড়া দিয়েছে বিশশতকের কোলাহলের ডাকে। যে-সব আন্দোলনের সমষ্টি আধুনিকতাবাদ, সেগুলো আবির্ভূত হ’তে শুরু করেছিলো। উনিশশতকের মাঝভাগ থেকে, ফরাশিদেশে; ১৮৮০কে মনে করা হয় আধুনিকতার সূচনাকাল ব’লে, যখন দেখা দেন প্রথম আধুনিকেরা-মালার্মে, ভিলিয়ের দ্য লিজল-আঁদ, উ্যসম্য, লোত্রেআমেী, যাঁরা ঋণী ফ্লবেয়ার, গতিয়ে, বদলেয়ারের কাছে। এর পর দশকে দশকে দেখা দেন। আধুনিক কবি, ঔপন্যাসিক, সঙ্গীতস্রষ্টা, চিত্রকরেরা। পশ্চিমে এ-সময়, উনিশশতকের দ্বিতীয় ভাগে, ঈশ্বর একটা বাজে কথায় পরিণত, ধর্মীয় মূল্যবােধের বদলে সেখানে দরকার পড়ে নতুন মূল্যবােধ, আর ওই মূল্যবােধ সৃষ্টি করেছিলেন মহৎ আধুনিক লেখকেরা। তাঁরা শিল্পকলাকেই ক'রে তুলেছিলেন নতুন ধর্ম। ভলতেয়ার, ডারউইন নষ্ট ক’রে দিয়েছিলেন অনেক প্রথাগত বিশ্বাস, আর ফ্রয়েড আবিষ্কার করেন মনের রহস্যময় গভীরতা, যেখানে যুক্তি নিস্ক্রিয়, যেখানে রাজত্ব করে পুরাণ আর প্রতীক। সেখানে দার্শনিক বা বিজ্ঞানী সাহায্য করতে পারেন না, হয়তো পারেন। কবি আর ঔপন্যাসিক। তাঁরা সমালোচনা করেন বুর্জোয়া সমাজের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের; এবং সমাজ থেকে দূরে স’রে যান, এগিয়ে যান বিশুদ্ধ শিল্পকলার দিকে, কল্পনার ব্যক্তিগত ভুবনের দিকে, কেননা চারপাশের সমাজ তাঁদের মনে শুধু বমনের উদ্রেক করে। তাঁরা আশ্রয় নেন। কলাকৈবল্যবাদে, শিল্পের জন্যে শিল্পে, ঘেন্না করেন। প্রথাগত সামাজিক নৈতিক বিন্যাসকে, যার সাহায্যে বেঁচে আছে ঘৃণ্য সভ্যতা। তাঁরা শুরু থেকেই ছিলেন বিদ্রোহী, শ্ৰদ্ধেয় ছিলেন না, তাঁদের লেখা অর্জন করে কেলেঙ্কারির ও শিল্পকলার সাফল্য। শিল্পকলাবাদী বাস্তবতাবিমুখ বিচিত্র আন্দোলন, যেগুলোর নাম আগেই উল্লেখ করেছি, একটা সমন্বিত রূপ নেয়। ১৯১০ থেকে ১৯২৫ অব্দের মধ্যে, এবং এ-সময়টাকে মনে করা হয় আধুনিকতাবাদের শ্ৰেষ্ঠ সময়। এ-সময়ে বিশশতক দগ্ধ হয় অপব্যয়ী অক্লান্ত আগুনে, প্রথম মহাযুদ্ধে, মেতে ওঠে রক্তপাতে; যুদ্ধের পর অসীম অবিশ্বাস আর হতাশা থেকে জন্ম নেয় বিশশতকের অসামান্য শিল্পকলা, যার মধ্যে আধুনিক কবিতা প্রধানতম। আধুনিকতার নিজের বছর ব’লে চিহ্নিত করা হয় ১৯২২কে, যে-বছর বেরোয় এলিঅটের পোড়োজামি, রিলকের অফিফুসের প্রতি সনেটগুচ্ছ, জয়েসের ইউলিসিস, লরেন্সের অ্যারন্স রড প্রভৃতি।
বাঙলায় ১৯২৫ আধুনিকতাবাদের সূচনাবছর; আর কয়েক বছর পরই বেরোয় পরিপূর্ণ আধুনিক চেতনাসম্পন্ন কয়েকটি কাব্যগ্রন্থ : বুদ্ধদেব বসুর বন্দীর বন্দন (১৯৩০), বিষ্ণু দের উর্বশী ও আর্টেমিস (১৯৩৩), সুধীন্দ্রনাথ দত্তের অর্কেস্ট্রা (১৯৩৫), জীবনানন্দ দাশের ধূসর পাণ্ডুলিপি (১৯৩৬), অমিয় চক্রবর্তীর খসড়া (১৯৩৮)। বাঙলা কবিতায় রোম্যান্টিকতা দেখা দিতে লেগেছিলো প্রায়-একশতক, কিন্তু আধুনিকতাবাদ দেখা দেয় পশ্চিমের সাথে একই দশকে, প্রায়-অবিলম্বে। আধুনিকতাবাদের জন্যে পশ্চিমে আধশতক ধ’রে যে-প্ৰস্তৃতি চলেছিলো, বাঙলায় তেমন কোনাে প্রস্তুতি চলে নি; তাই বাঙলার আধুনিকতাবাদ পশ্চিমের থেকেও বেশি আকস্মিক ও বিপর্যয়কর। বাঙলার নিজস্ব পরিস্থিতির জন্যেই আমাদের প্রথম আধুনিকেরা প্রথম কাব্যে চলেন প্রথাগত পথে, ওইটুকুই তাঁদের প্রস্তুতিপর্ব; দ্বিতীয় কাব্যেই তাঁরা প্রথা বর্জন ক’রে সৃষ্টি করেন বিস্ময়কর কবিতা। বিশের দশকে বাঙলা ভাষায় সূচনা ঘটে আধুনিক কবিতার, তিরিশের দশকে ফলে ওই কবিতার অতুলনীয় শস্য। পশ্চিমে আধুনিকতাবাদ যেমন সৃষ্টি করে অভিনব শিল্পকলা, অভিনবত্ব সঞ্চার করে শিল্পকলার সমস্ত শাখায়, বাঙলায় তা ঘটে নি; ঘটেছে প্রধানত বা একলা আধুনিক কবিতায়;-আমাদের কবিরাই শুধু আয়ত্ত করতে পেরেছেন নতুন সংবেদনশীলতা, সৃষ্টি করতে পেরেছেন নতুন শিল্পকলা। জীবনানন্দ বা সুধীন্দ্রনাথের পাশে তারাশঙ্কর বা বিভূতিভূষণ বেদনাদায়কভাবে প্রথাগত; আর আধুনিক কবিরাও যখন উপন্যাস লিখেছেন, তখন তাঁরাও থেকেছেন প্রথাগত। পশ্চিমের মতো বাঙলা আধুনিক কবিতাও ভয়ংকর বদল ঘটায় সংবেদনশীলতার; এ-কবিতা রাবীন্দ্ৰিক কবিতার স্বাভাবিক পরিণতি তো নয়ই, বরং এতো ভিন্ন যে আজো এ-কবিতার অভিঘাত আমরা কাটিয়ে উঠতে পারি নি; তাই আজো আধুনিক কবিতা এড়িয়ে প্রথাগত কবিতায়ই আমরা স্বস্তি খুজি। আমাদের শিক্ষা, সংস্কৃতি, ও জীবন যেহেতু প্রথাগত, মধ্যযুগীয়, তাই রোম্যান্টিক ও প্রথাগত কবিতার মহিমায়ই আমরা আজো মুগ্ধ হয়ে আছি। একটি মধ্যযুগীয় সংস্কৃতিতে আধুনিকতাবাদের বিকাশ এক বড়ো বিপর্যয় সন্দেহ নেই। প্রথাবাদী এ—অঞ্চলে আধুনিক কবিতায়ই প্রথম দেখি প্ৰথা থেকে স’রে আসা, অতীতের সাথে সম্পর্কছেদ, অসম্ভব এক শিল্পসৃষ্টির অভিলাষ। আধুনিক বাঙলা কবিতা বাঙালির সংবেদনশীলতা বদলে দিতে চেয়েছে; তবে বাঙালি বদলায় নি, এমন অচল গোত্রকে শিল্পকলার সাহায্যে বদলানাে অসম্ভব। আধুনিকতাপূর্ব বাঙলা কবিতা সরল আবেগের কবিতা, কৈশোর বা প্রথম যৌবনের আবেগ, স্বপ্ন, কাতরতাই বিষয় প্রথাগত বাঙলা কবিতার; আর ওই কবিতায় প্রকাশ পেয়েছে যে,-অভিজ্ঞতা, তা সর্বজনীন অভিজ্ঞতা, তা শুধু কবির নয়, পাঠকেরও অভিজ্ঞতা। আধুনিক বাঙলা কবিতা সর্বজনীন সাধারণ অভিজ্ঞতার বদলে প্রকাশ করে কবির অনন্য ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা, যা অধিকাংশ সময়ই মানসিক; আর আধুনিক কবিরা তা প্রকাশ করেছেন অভিনব ভাষায় ও অলঙ্কারে।
বিশের দশকে সূচনা ঘটে যে-কবিতার, আর ষাটের দশকে ঘটে যে-ধারার কবিদের শেষ উন্মেষ, সে-কবিতা অত্যন্ত সমৃদ্ধ। এ—ধারার প্রথম পাঁচজনই-জীবনানন্দ দাশ, অমিয় চক্রবর্তী, সুধীন্দ্রনাথ দত্ত, বুদ্ধদেব বসু, বিষ্ণু দে-এ-ধারার শ্রেষ্ঠ কবি; এর পর গুরুত্বপূর্ণ বহু কবি জন্ম নিয়েছেন, কিন্তু প্রথম পাঁচজনের স্তর আয়ত্ত করতে পারেন নি। আমাদের প্রথম আধুনিকেরাই আধুনিকতম; তাঁদের উপলব্ধি, স্বপ্ন, মানস অভিজ্ঞতা যেমন ব্যাপক ছিলো, তেমনি তাঁরা নিয়ন্ত্রণ করেছেন বাঙলা ভাষাকে, তাঁরা গোত্রের ভাষাকে পরিস্রুত ক’রে গেছেন। তাঁদের বাদ দিয়ে অন্যদের বিচার করলে এখন চোখে পড়ে বহু ভুল মূল্যায়ন: একদা যাঁদের বড়ো ভাবমূর্তি গড়ে উঠেছিলো, তাঁদের অনেককে আজ মনে হয় খুব গৌণ। যেমন প্রেমেন্দ্র মিত্রের ছিলো বড়ো কবির ভাবমূর্তি, আজ তাঁর সমগ্র কবিতা ঘেটে দু-তিনটির বেশি কবিতা পাই না, তাও সম্পূর্ণ আধুনিক নয়; বা সমর সেন, যাঁকে নিয়ে মত্ততা গেছে এক সময়, তাঁকেও মনে হয় খুব গৌণ। চল্লিশের দশকটা গৌণ কবিদের দশক; ভালো কবিরা আবার দেখা দেন পঞ্চাশ ও ষাটের দশকে। বাঙলাদেশে, স্পষ্ট ক’রে বলি, বাঙালি মুসলমানদের মধ্যে আধুনিক চেতনা দেখা দিতে সময় লেগেছিলো, তার কারণ বাঙালি মুসলমান অনেক পিছিয়ে ছিলো সামাজিকভাবে। আধুনিক চেতনার জন্যে যে-শিক্ষা ও সামাজিক অবস্থান ছিলো অপরিহার্য, তা বাঙালি মুসলমান পায় নি পঞ্চাশের দশকের আগে; এর আগে বাঙালি মুসলমানের কাব্যচর্চা ছিলো স্বল্পশিক্ষিতের স্বভাবকবিত্বের সাধনা। বাঙালি মুসলমান পেয়েছিলো এক বড়ো প্রথাগত পদ্যকার নজরুল ইসলামকে, যাঁকে নিয়ে আজো তাঁরা অন্ধ হয়ে আছে, এবং বাঙালি মুসলমান কবি যশোপ্রার্থীরা মনে করেছিলেন নজরুলকে নকল করলেই কবি হওয়া যাবে। চল্লিশের দশকে তাঁদের গ্রাস করে রুগ্ন পাকিস্থানবাদ, শোচনীয় পদ্যে তাঁরা ভ’রে তোলেন পাকিস্থান। পঞ্চাশ-ষাটের দশকে বাঙলা ভাষার দু-অঞ্চলে ঘটে দু-রকম ঘটনা : পূর্বাঞ্চলে প্রথমবারের মতো দেখা দেয় ব্যাপক আধুনিকতা, যা প্রধানত বিকশিত হয় বাহ্যজীবন আশ্রয় ক’রে, আর পশ্চিমাঞ্চলে বাহ্যজীবনকে উপেক্ষা ক’রে কবিরা চর্চা করতে থাকেন ব্যক্তিতা ও অন্তর্জগতের, যা তাঁদের পৌঁছে দেয় প্রায়-পাগলামোর পর্যায়ে। ওখানকার পঞ্চাশ-ষাটের কবিদের রচনায় চোখে পড়ে বিভিন্ন মাত্রার উন্মত্ততা; উন্মত্ততা কখনো কখনো কবিতা হ’তে পারে, তবে কবিতা উন্মত্ততা নয়। পশ্চিম বাঙলার কবিতায় বানানো উন্মত্ততাও চোখের আড়ালে থাকে না, যাতে ঝিলিকের অভাব থাকলেও রয়েছে প্ৰলাপপ্রাচুর্য। পঞ্চাশ-ষাটের দশকে বাঙলা কবিতার উৎকৃষ্টতর অংশ রচিত হয় বাঙলাদেশে, যা বাহ্য ও আন্তর অভিজ্ঞতার গুরুত্বপূর্ণ উৎসারণ।
এ-সংকলনের উদ্দেশ্য প্রথাগত কবিতা থেকে আধুনিক কবিতা, এবং অকবিতা থেকে উৎকৃষ্ট কবিতা শনাক্ত করা। আধুনিক বাঙলা কবিতার প্রতিটি সংকলন দুটি ক্রটি বহন ক’রে থাকে; বুদ্ধদেব বসুর সংকলনটির মতো মিশ্রণ ঘটায় আধুনিক ও প্রথাগত কবিতার, বা এমন অনেকের কবিতা সংকলন করে, যাঁরা কবি নন। এটি আধুনিক এবং শুধুই আধুনিক কবিতার সংকলন, এবং এটি আধুনিক বাঙলা কবিতার ইতিহাস নয়, সমালোচনা। বিশ থেকে ষাট দশকের কবিদের বিপুল পরিমাণ কবিতা আবার আমি আনন্দের সাথে পড়েছি, পীড়িতও বোধ করেছি। বহু বিখ্যাত ও অখ্যাতর লেখা অকবিতা প’ড়ে; সংকলন করেছি। শুধু তাঁদেরই কবিতা, আমার বিবেচনায় যাঁরা কবি, এবং সংকলন করতে চেষ্টা করেছি। প্রত্যেকের শ্রেষ্ঠ কবিতাটি বা কবিতাগুচ্ছ। কবিদের মান অনুসারে নিয়েছে বেশি বা কম কবিতা; সবচেয়ে বেশি সংখ্যক কবিতা নিয়েছি জীবনানন্দ দাশের, আর যিনি সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পৃষ্ঠা দখল করেছেন তিনি সুধীন্দ্রনাথ দত্ত। পাঁচ মহৎ আধুনিকের আরো বেশি কবিতা নিতে পারলে আমি তৃপ্তি পেতাম, কিন্তু বইয়ের আকৃতির ভয়ে তাঁদের আরো কবিতা নিই নি। তাঁরা ছাড়া অন্য প্রায়-প্রত্যেক কবি সম্পর্কেই আমি প্রচারিত ধারণা থেকে ভিন্ন ধারণা পোষণ করি; তাই বড়ো ভাবমূৰ্তিসম্পন্ন অনেকেই এ-সংকলনে ক্ষুদ্র আকার ধারণ করেছেন। যেমন প্রেমেন্দ্র মিত্র, বা অচিন্ত্যকুমার খুব গৌণ হয়ে উঠেছেন, তাঁদের কবিতা নাও নেয়া যেতো; বুদ্ধদেব বসু যেখানে সমর সেনের কবিতা নিয়েছেন তেরোটি, সুধীন্দ্রনাথ দত্তের থেকে পটটি বেশি, সেখানে আমি সমর সেনের নিয়েছি পাঁচটি কবিতা, এবং তাঁর থেকে বেশি কবিতা নিয়েছি অনেকের। পশ্চিম বাঙলার অতিপ্রচারিত পঞ্চাশ-ষাটের কবিদের কবিতাও এ-কারণেই কম নিয়েছি। প্রকৃত কবি এমন কাউকেই বাদ দিতে চাই নি, তবে পশ্চিম বাঙলার কেউ কেউ, তাঁদের কাব্যগ্রন্থের দুষ্প্রাপ্যতার জন্যে, বাদ প’ড়ে থাকতে পারেন; বাঙলাদেশের কবিদের বেলা এমন ঘটে নি। এখানে সক্রিয় অজস্র কবিযশোপ্ৰার্থীর মধ্যে তাঁদেরই নিয়েছি, যাঁরা কবি; তবে কয়েকজনকে নিই নি, সেটা আমাদের সময়ের শোচনীয় দুর্ভাগ্য-সৈয়দ আলী আহসান, আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ, আল মাহমুদ, ফজল শাহাবুদ্দীন, ও আবদুল মান্নান সৈয়দের কবিতা নিই নি, আমি নিতে পারি না, কেননা তাঁরা সামরিক একনায়কত্ব ও মৌলবাদে দীক্ষা গ্ৰহণ ক’রে মানুষ ও কবিতা ও আধুনিকতার বিপক্ষে চ’লে গেছেন। এ-সংকলনটিকে আমি ভবিষ্যতের জন্যে রেখে যেতে চাই, এক শতক পর আমার মতো কেউ এটি বিচার করবেন। আধুনিক কবি ও কবিতা শনাক্তিতে আমি কতোটা ব্যর্থ হয়েছি।

২৭ অগ্রহায়ণ ১৪০০, ১১ ডিসেম্বর ১৯৯৩
১৪ই ফুলার রোড, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকা ঢাকা, বাঙলাদেশ
হুমায়ুন আজাদ




Read Now and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

১০,০০০ এবং আরও একটি ধর্ষন - হুমায়ূন আজাদ

১০,০০০ এবং আরও একটি ধর্ষন - হুমায়ূন আজাদ ১০,০০০ এবং আরও একটি ধর্ষন - হুমায়ূন আজাদ




Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

কাব্যসংগ্রহ - হুমায়ুন আজাদ

কাব্যসংগ্রহ - হুমায়ুন আজাদ কাব্যসংগ্রহ - হুমায়ুন আজাদ
অজস্র অসংখ্য কবিতা লেখার মনোরম দেশে আমি কবিতা লিখেছি কমই। অনুরাগীদের দীর্ঘশ্বাসে আমি প্রায়ই কাতর হই যে দিনরাত কবিতা লেখা উচিত ছিলো আমার । অনেক ভুলই হয়তো সংশোধিত হতে পারে; তবে আমার এ-ভুল বা অপরাধ সংশোধন অসাধ্য। অবশ্য মধুর আলস্যে জীবন উপভোগ আমি করি নি; বন্ধুরা যখন ধ্বংসস্তুপের ওপর বসে উপভোগ করছেন তাদের অতীত কীর্তি, সিসিফাসের মতো আমি পাথর ঠেলে চলছি। কবিতার মতো প্রিয় কিছু নেই আমার বলেই বোধ করি, তবে আমি শুধু কবিতার বাহুপাশেই বাধা থাকি নি; কী করেছি হয়তো অনেকেরই অজানা নয়। কবিতা কেনো লিখলাম? খ্যাতি, সমাজবদল, এবং এমন আরো বহু মহৎ উদ্দেশ্যে কবিতা আমি লিখি নি বলেই মনে হয়; লিখেছি সৌন্দর্যসৃষ্টির জন্যে, আমার ভেতরের চোখ যে-শোভা দেখে, তা আকার জন্যে; আমার মন যেভাবে কেপে ওঠে, সে-কম্পন ধরে রাখার জন্যে। মানুষের অনন্ত সৃষ্টিশীলতা আমার ভেতর দিয়েও প্রকাশ পাক কিছুটা, এমন একটা ব্যাপারও হয়তো আছে। যদিও আমার কবিতা অপ্রিয় নয়। কবিতা প্রলাপ নয়, তবে প্রলাপ ও কবিতা আজ অভিন্ন অনেকের কাছে; এটা এখনকার এক জনপ্রিয় রোগ। আমার কাব্যগ্রন্থের সংখ্যা বেশি নয়, ছ-টি, ষাটটি হ’লে গৌরব করা যেতো; ওগুলো থেকে বাছাই ক’রে একটি শ্ৰেষ্ঠ কবিতাও বেরিয়েছিলো; এবার বেরোলো কাব্যসংগ্রহ, এ-সংগ্রহটি আমার কবিতার গ্রহণযোগ্য পাঠ। নিজের কবিতা সম্বন্ধে কিছু বলতে চাই না; শুধু বলি আমি কবিতা লিখেছিলাম, লিখছি, এবং লিখবো, এটা আমাকে সুখী এবং আমার বেঁচে থাকাকে সুখকর করেছে- অন্য আর কিছু এতোটা করে নি।
এরকম কিছু কথাই বলে গেছেন হুমায়ুন আজাদ তার এই বইটির ভূমিকায়। কবিতাগুলো পড়লে এক অন্যধরনের ভালোলাগা কাজ করে যা লিখে প্রকাশ করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়, তাই সেই দ্বায়িত্ব আপনাদের উপরেই থাকলো।




Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

মাতাল তরণী - হুমায়ুন আজাদ

মাতাল তরণী - হুমায়ুন আজাদ মাতাল তরণী - হুমায়ুন আজাদ




Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

আততায়ীদের সঙ্গে কথোপকথন - হুমায়ুন আজাদ

আততায়ীদের সঙ্গে কথোপকথন - হুমায়ুন আজাদ আততায়ীদের সঙ্গে কথোপকথন - হুমায়ুন আজাদ




Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

আমার অবিশ্বাস - হুমায়ুন আজাদ

amarboi আমার অবিশ্বাস - হুমায়ুন আজাদ

আমার অবিশ্বাস সম্পর্কে নতুন করে কিছু বলার আছে বলে মনে হয় না। হুমায়ুন আজাদকে যে চেনে সে 'আমার অবিশ্বাস' জানে। আমার অবিশ্বাস, বিশ্বাসের আধাঁর থেকে বেড়িয়ে আলোতে আসার সিঁড়ি। আমার অবিশ্বাস, অজ্ঞতাকে পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যাবার সাহস। আমার অবিশ্বাস, সত্যের আঘাতে মিথ্যেকে চূর্ণ করার প্রত্যয়। আমার অবিশ্বাস শুধু হুমায়ুন আজাদের অবিশ্বাস নয়, আমার অবিশ্বাস, অগনিত অবিশ্বাসীর অবিশ্বাস।।

ভূমিকা
বিশ্বজগত এখনো দাড়িয়ে আছে বিশ্বাসের ভিত্তির ওপর। গত তিন শতকে বিজ্ঞান বেশ এগিয়েছে, পৃথিবীকে মহাজগতের কেন্দ্র থেকে সরিয়ে দিয়েছে এক গৌণ এলাকায়, মহাজগতকে এক বদ্ধ এলাকার বদলে ক'রে তুলেছে অনন্ত; এবং মানুষকে সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ, অমৃতের পুত্র প্রভৃতি আত্মগর্বিত সুভাষণ থেকে বিচ্যুত করে পরিণত করেছে নগ্ন বানরে; কিন্তু মানুষের চেতনার বিশেষ বদল ঘটে নি। মানুষ আজো আদিম। মানুষের চোখে আজো সব কিছুই অলৌকিক রহস্যে পরিপূর্ণ; আকাশে আজো তারা অনন্ত নক্ষত্রপুঞ্জ বা নিরন্তর বিস্ফোরিত গ্যাসকুণ্ডের বদলে দেখতে পায় বিভিন্ন বিধাতা; দেখতে পায় মনোরম স্বৰ্গ আর ভীতিকর নরক।
সভ্যতার কয়েক হাজার বছরে মানুষ মহাজগতকে উদ্ঘাটিত করার বদলে তাকে পরিপূর্ণ করেছে অজস্র রহস্যে, ধারাবাহিকভাবে ক'রে চলছে বিশ্বের রহস্যীকরণ; বা সত্যের অসতীকরণ। মহাজগতের রহস্যীকরণে অংশ নিয়েছে মানুষের প্রতিভার সব কিছু: পুরাণ, ধর্ম, দর্শন, সাহিত্য, শিল্পকলা, এবং আর যা কিছু আছে। তার শক্তির সব কিছুই মানুষ ব্যবহার করেছে মহাজগতকে রহস্যে ভরে তুলতে; তাকে পরিচিত করার বদলে করেছে অপরিচিত, আলোকিত করার বদলে করেছে তমসাচ্ছন্ন। আদিম মানুষ যখন রহস্যীকরণ শুরু করেছিলো, তার কোনো দুরভিসন্ধি ছিলো না, সে শুধু গিয়েছিলো ভুল পথে; কিন্তু পরে সমাজপ্রভুরা দেখতে পায় বিশ্বের সত্য বের করার বদলে তাকে রহস্যে বোঝাই ক’রে তুললেই সুবিধা হয় তাদের। মহাজগতের রহস্যীকরণে ধর্ম নেয় প্রধান ভূমিকা; তার কাজ হয়ে ওঠে রহস্যবিধিবদ্ধকরণ, আলো সরিয়ে অন্ধকার ছড়ানো, মানুষের মনে বিশ্বাস সৃষ্টি করা সে-সব সম্বন্ধে যা সম্পূর্ণরূপে অস্তিত্বহীন। ওই রহস্যের পায়ের নিচে নানা তাত্ত্বিক কাঠামো স্থাপন করে দর্শন, জন্ম দেয় বহু বিখ্যাত ধাধা, করে রহস্যের দর্শনীকরণ। দর্শনের লক্ষ্য ছিলো সত্য আবিষ্কার, কিন্তু দর্শন আসলে বেশি সত্য বের করতে পারে নি; কিন্তু মিথ্যে প্রতিষ্ঠায় তার কাজ অতুলনীয়। প্লাতো-আরিস্ততল সত্য বের করেছেন খুবই কম, তবে মিথ্যে প্রতিষ্ঠিত করেছেন বিপুল। সাহিত্য ও শিল্পকলা রহস্যকে রূপময় ক’রে তীব্র আবেগের সাথে সঞ্চার করেছে মানুষের মনে। বিশ্বসাহিত্যের বড়ো অংশই দাড়িয়ে আছে ভুল ভিত্তির ওপর। তাই মহাজগত এখনো রহস্যময়; মহাজগতকে এখনো বোঝার উপায় হচ্ছে বিশ্বাস। এই রহস্যময়তা ও বিশ্বাস ক্ষতিকর মানুষের জন্যে; এখন দরকার মহাজগত ও মানুষের মনকে অলৌকিক রহস্য থেকে উদ্ধার করা, অর্থাৎ দরকার মহাজগতের বিরহস্যীকরণ। মানুষের জন্যে যা কিছু ক্ষতিকর, সেগুলোর শুরুতেই রয়েছে বিশ্বাস; বিশ্বাস সত্যের বিরোধী, বিশ্বাসের কাজ অসত্যকে অস্তিত্বশীল করা। বিশ্বাস থেকে কখনো জ্ঞানের বিকাশ ঘটে না; জ্ঞানের বিকাশ ঘটে অবিশ্বাস থেকে, প্রথাগত সিদ্ধান্ত দ্বিধাহীনভাবে না মেনে তা পরীক্ষা করার উৎসাহ থেকে। বাঙলার মহাপুরুষগণ, বিদ্যাসাগর ও আরো দু-একজন বাদে, সবাই বিশ্বাসী; তারা আমাদের জন্যে সৃষ্টি করে গেছেন ভুল কল্পজগত। রাজনীতিবিদেরা আজ মেতে উঠেছে বিশ্বাস ও মিথ্যের প্রতিযোগিতায়; তারা বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষতিকর মানবগোত্র। আমার অবিশ্বাস-এ সাতটি প্রবন্ধ রয়েছে, তবে বইটি প্রবন্ধের বই নয়; আমি ধারাবাহিকভাবে একটি বই-ই লিখতে চেয়েছিলাম, তবে পাঠকদের কথা ভেবে বইটিকে সাত শিরোনামে ভাগ ক’রে দিলাম। আমি আনন্দিত যে বইটি বিপুল সাড়া জাগিয়েছে, বাঙালির বিশ্বাসের মেরুদণ্ডে কিছুটা ফাটল ধরাতে পেরেছে। সংশোধিত এ-সংস্করণে শুদ্ধ ক'রে দেয়া হলো কয়েকটি মুদ্রণ ত্রুটি, বদল করা হলো একটি বাক্য, কবিতার অনুবাদেও বদল করা হলো কয়েকটি শব্দ। নতুন অক্ষরে বইটি এবার বিন্যস্ত হলো বলে কয়েকটি পাতা কমলো, কিন্তু আর কিছু কমে নি, বরং কিছুটা বেড়েছে।

১৪ই ফুলার রোড
হুমায়ুন আজাদ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকা
৪ আষাঢ় ১৪০৪ : ১৮ জুন ১৯৯৭





Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

নিবিড় নীলিমা - হুমায়ুন আজাদ

নিবিড় নীলিমা - হুমায়ুন আজাদ নিবিড় নীলিমা - হুমায়ুন আজাদ

আমাদের সময়ের একমাত্র কপটতামুক্ত লেখক হুমায়ুন আজাদ। বাংলাদেশের খল ও আদর্শহীন রাজনীতির বিরুদ্ধে তিনি তীব্র-তীক্ষন শাণিত ভাষায় লিখেছেন। এই বইয়ের প্রতিটি লেখা হয়ে উঠেছে রাজনীতির বিরুদ্ধে ভাষিক প্রতিরোধ।




Download and Comments/Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

অর্থবিজ্ঞান - হুমায়ুন আজাদ

অর্থবিজ্ঞান - হুমায়ুন আজাদ অর্থবিজ্ঞান - হুমায়ুন আজাদ




Download and Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

দ্বিতীয় লিঙ্গ - হুমায়ূন আজাদ

দ্বিতীয় লিঙ্গ - হুমায়ূন আজাদ দ্বিতীয় লিঙ্গ - হুমায়ূন আজাদ

সিমন দ্য বোভোয়ারি সেকেন্ড সেক্স এর বাঙলা অনুবাদ দ্বিতীয় লিঙ্গ।




Download and Join our Facebook Group


This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

কতো নদী সরোবর বা বাংলা ভাষার জীবনী - হুমায়ুন আজাদ

Kato Nadi Sharobar Ba Bangla Bhashar Jiboni - So Many Rivers and Lakes or A Biography of the Bengali Language by Humayun Azad কতো নদী সরোবর বা বাংলা ভাষার জীবনী - হুমায়ুন আজাদ।
কোথা থেকে এসেছে আমাদের বাংলা ভাষা? ভাষা কি জন্ম নেয় মানুষের মতো? বা যেমন বীজ থেকে গাছ জন্মে তেমনভাবে জন্ম নেয় ভাষা? না, ভাষা মানুষ বা তরুর মতো জন্ম নেয় না। বাংলা ভাষাও মানুষ বা তরুর মতো জন্ম নেয়নি, কোনো কল্পিত স্বর্গ থেকেও আসেনি। এখন আমরা যে বাংলা ভাষা বলি এক হাজার বছর আগে তা ঠিক এমন ছিল না। সে ভাষায় এ দেশের মানুষ কথা বলত, গান গাইত, কবিতা বানাত। মানুষের মুখে মুখে বদলে যায় ভাষার ধ্বনি। রূপ বদলে যায় শব্দের, বদল ঘটে অর্থের। অনেক দিন কেটে গেলে মনে হয় ভাষাটি একটি নতুন ভাষা হয়ে উঠেছে। আর সে ভাষার বদল ঘটেই জন্ম হয়েছে বাংলা ভাষার। আরো পড়তে আজই সংগ্রহ করুন, হুমায়ূন আজাদের “কতো নদী সরোবর বা বাংলা ভাষার জীবনী”। বইটিতে সূচীপত্রে হাইপারলিঙ্ক করা আছে। ক্লিক করলেই কাংক্ষিত পাতায় চলে যেতে পারবেন। বইটি কেমন লাগলো আশা করি জানাবেন।




Download and Join our Facebook Group
Kato Nadi Sharobar Ba Bangla Bhashar Jiboni - So Many Rivers and Lakes or A Biography of the Bengali Language by Humayun Azad
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

নির্বাচিত প্রবন্ধ - হুমায়ুন আজাদ

নির্বাচিত প্রবন্ধ - হুমায়ুন আজাদ
নির্বাচিত প্রবন্ধ - হুমায়ুন আজাদ
ডক্টর হুমায়ুন আজাদ বিপুল সংখ্যক শব্দ ও বাক্য, গত দু-দশকে, বিন্যাস করেছেন বিভিন্ন আঙ্গিকে; কবিতা, গবেষণা, সমালোচনা, ভাষাবিজ্ঞান, উপন্যাস, কিশোরসাহিত্য, এবং প্রবন্ধে। কবিতার দিকে চোখ রেখে তিনি বেরিয়েছিলেন তরুণ বয়সে, বাঙলা ভাষাকে ক’রে নিয়েছিলেন দ্বিতীয় ও অদ্বিতীয় স্বদেশ, তবে গদ্যের ঢেউই উঠেছে বেশি তাঁর জগতে। স্বপ্ন কল্পনা সৌন্দর্য কামনায় যেমন আলোড়িত তিনি, তেমনি আনন্দ পান মননশীলতায়; এর ফলই কবিতা, উপন্যাস, ও প্রবন্ধ। তিনি প্রথাগত নন কোনো এলাকায়; তাঁর সব ধরনের লেখায়, এবং প্রবন্ধে, এর পরিচয় রয়েছে। সাহিত্য, বিশেষ ক’রে কবিতা, নিয়ে লিখতেই তিনি সুখ পান; কিন্তু তিনি শুধু কবিতা নিয়ে লেখেন নি; ভাষা, বিশ্বাস, মানুষের অবস্থা, রাজনীতি প্রভৃতি নিয়েই লিখেছেন বেশি; এবং ভাষা তাঁর কাছে এক শিল্পকলা। হুমায়ুন আজাদের নির্বাচিত প্রবন্ধ বাঙলাদেশের একজন প্রধান মননশীল ও সৃষ্টিশীল লেখকের প্রবন্ধসংগ্রহ, যাতে এ সময়ের শ্রেষ্ঠ চিন্তা ও সৃষ্টিশীলতার পরিচয় সংকলিত হলো। হুমায়ুন আজাদ বলেছেন, ‘এ-বই হয়তো অনেকের প্রিয় ও সঙ্গী হবে; অনেকের হবে না।’ কিন্তু সন্দেহ নেই এ-বই প্রিয় ও সঙ্গী হবে বর্তমান ও ভবিষ্যতের অসংখ্য মেধাবী চিত্তের।




Download Now and Join our Facebook Group
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

রাজনীতিবিদগণ - হুমায়ুন আজাদ

Rajnitibidgon - Humayun Azad রাজনীতিবিদগণ - হুমায়ুন আজাদ
হুমায়ুন আজাদকে একবার প্রশ্ন করা হয়েছে : দেশে হু হু করে বাড়ছে চায়নিজ রেস্টুরেন্ট, বিউটি পার্লার অথচ সেই হারে বাড়ছে না পাবলিক লাইব্রেরি– এই ব্যাপারে আপনার মন্তব্য কী ?
হুমায়ুন আজাদ : "এতে এই রাষ্ট্র কতো অসুস্থ তার পরিচয় বহন করে। কথা হচ্ছে, কেন পাঠাগার বাড়ছে না? কেন চায়নিজ রেস্টুরেন্ট বা বিউটি পার্লার বাড়ছে? বোঝা যাচ্ছে যে, এক গোত্র প্রচুর টাকা উপার্জন করছে, অবৈধভাবে উপার্জন করছে, সেই টাকা অপচয় করার জন্য তাদের এখন নানা জায়গা দরকার। সেই টাকা অপচয় করার জন্য একটি স্থান হচ্ছে চায়নিজ রেস্টুরেন্ট, আরেকটি জায়গা হচ্ছে বিউটি পার্লার, আরো জায়গা আছে– সুপার মার্কেট বা চার তারা , তিনতারা হোটেল– এই জাতীয় স্থুল ব্যাপারে, অবৈধভাবে যারা অর্থ উপার্জন করছে, তারা লিপ্ত হয়ে রয়েছে কিন্তু বই মননশীল ব্যাপার। আমাদের রাষ্ট্র যারা চালায় তারা মননশীল নয়।
আমাদের আমলা-সেনাপতি-বিচারপতি-অধ্যাপক–প্রকৌশলী-চিকিৎসক কারো মননশীলতা নেই, বই তাদের চিন্তার মধ্যেও নেই। কাজেই পাঠাগার কী করে বাড়বে ? বোঝা যাচ্ছে, যে মানুষেরা আমাদের রাষ্ট্রকে নিয়ন্ত্রণ করছে, তারা শক্তিশালী, বই তাদের প্রয়োজন নয়; না হলে পাঠাগার বাড়তো। পাঠাগার প্রয়োজন হচ্ছে ছাত্রের এবং জ্ঞান মনস্ক মানুষের, তাদের কোন ক্ষমতা নেই, তাদের কোন অর্থশক্তি নেই যে তারা পাঠাগার বানাবে এবং আমাদের রাষ্ট্র পাঠাগার চায়না। আমাদের রাষ্ট্র ঐ চায়নিজ রেস্টুরেন্ট চায়, বিউটি পার্লার চায়, সুপার মার্কেট চায় এবং নতুন নতুন পাজেরো চায়; মননশীলতা চায় না, সৃষ্টিশীলতা চায় না। কাজেই পাঠাগার বাড়ছে না।"




Read / Download
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

হুমায়ূন আজাদের বইসমূহ

Humayun Azad






দ্বিতীয় লিঙ্গ - হুমায়ূন আজাদ
http://g-p-l.us/O1C4bA

নারী - হুমায়ূন আজাদ
http://g-p-l.us/O1C63l

সীমাবদ্ধতার সূত্র - হুমায়ুন আজাদ
http://g-p-l.us/O1C8s6

লাল নীল দীপাবলি বা বাংলা সাহিত্যের জীবনী - হুমায়ুন আজাদ
http://g-p-l.us/O1C9fp

শুভব্রত ও তার সম্পর্কিত সুসমাচার - হুমায়ূন আজাদ
http://g-p-l.us/O1CaAf

প্রবচনগুচ্ছ - হুমায়ূন আজাদ
http://g-p-l.us/O1CbnE

পাক সার জমিন সাদ বাদ - হুমায়ূন আজাদ
http://g-p-l.us/O1CdMg

ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইল - হুমায়ূন আজাদ
http://g-p-l.us/O1CfDO

আমার অবিশ্বাস - হুমায়ূন আজাদ
http://g-p-l.us/O1CgaW
This is the largest online Bengali books reading library. In this site, you can read old Bengali books pdf. Also, Bengali ghost story books pdf free download. We have a collection of best Bengali books to read. We do provide kindle Bengali books free. We have the best Bengali books of all time. We hope you enjoy Bengali books online free reading.

Authors

 
Support : Visit our support page.
Copyright © 2021. Amarboi.com - All Rights Reserved.
Website Published by Amarboi.com
Proudly powered by Blogger.com